Breaking

Translate

Tuesday, 19 March 2019

NTRCA সর্বশেষ খবর : বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ সম্পর্কে সর্বশেষ খবর

NTRCA সর্বশেষ খবর : এনটিআরসিএ শিক্ষক নিয়োগ সম্পন্ন হয়েছে

ntrca_সর্বশেষ_খবর

ntrca সর্বশেষ খবর হলো বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ এর প্রক্রিয়া শুরু করেছে এনটিআরসিএ।ইতোমধ্যেই প্রথম নিয়োগ সম্পন্ন হয়েছে।কমিটির হাত থেকে নিয়োগের ক্ষমতা এনটিআরসিএ এর হাতে হস্তান্তরের পর নতুন বিধিমালা অনুযায়ী এটি ছিলো ২য় নিয়োগ।এর আগে সর্বপ্রথম ২০১৬ সালে নিয়োগের সুপারিশ করে তারা।কিন্তু সে নিয়োগের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ এনে উচ্চ আদালতে রীট করে কতিপয় নিবন্ধনকারী। আদালতের দীর্ঘ বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে বিগত ১৪ই ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখে NTRCA এর প্রতি কতিপয় নির্দেশনা সম্বলিত একটি রায় প্রদান করেছে আদালত। রায়ের আগ পর্যন্ত প্রায় দুই বছর নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ থাকায় হাজার হাজার নিবন্ধনকারী হতাশায় দিনাতিপাত করেছেন। অবশেষে আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হওয়ায় তাদের মাঝে কিছুটা স্বস্তি ফিরে এসেছে।

বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ : ১ম ধাপ


২০১৯ সালে এসে নতুন করে আবার বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ শুরু করেছে NTRCA। নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরুর প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে গত ১০ই জুলাই  আদালতের দেয়া নির্দেশনা অনুযায়ী এপর্যন্ত শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ সকল নিবন্ধনকারীর সমন্বয়ে তৈরি করা হয়েছে  ntrca মেধাতালিকা ২০১৯। মেধাতালিকাটি NTRCA এর ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। এতে নিজ নিজ বিষয়ে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে মেধাতালিকায় নিজের অবস্থান সহজেই দেখতে পাচ্ছেন নিবন্ধনকারীগণ। যদিও এ মেধাতালিকা নিয়ে কিছুটা বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছিলো এবং বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় নেতিবাচক খবরও প্রচারিত হয়েছিলো তবে NTRCA এ মেধাতালিকার বিষয়ে সকল অভিযোগ অস্বীকার করে এবং তাদের বক্তব্য ও জবাব তুলে ধরে নিজেদের ওয়েবসাইটে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে।

বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ : ২য় ধাপ




নিয়োগ প্রক্রিয়ার ২য় পদক্ষেপ হিসেবে গত ১৬ই জুলাই ২০১৮ তারিখে সারা দেশের সকল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারগণের নিকট একটি নোটিশ পাঠায় NTRCA। নোটিশের বিষয়বস্তু ছিলো বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ এবং প্রতিষ্ঠান প্রধানের তথ্য হালনাগাদকরণ প্রসঙ্গে। উক্ত নোটিশে বলা হয় ," খুব শীঘ্রই বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে এন্ট্রি লেভেলের শূন্য পদে শিক্ষক নিয়োগের জন্য সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হতে অনলাইনে চাহিদা (e-Requisition) সংগ্রহ করা হবে। সে প্রেক্ষিতে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানকে User ID এবং Password প্রদান করা হবে বিধায় EIIN সহ প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম এবং প্রতিষ্ঠান প্রধানের নাম ও মোবাইল ফোন নম্বর এনটিআরসি'র সংগ্রহে থাকা প্রয়োজন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ইতোপূর্বে ২০১৬ সালে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারগণের মাধ্যমে অনলাইনে এ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছিলো কিন্তু ইতোমধ্যে অনেক প্রতিষ্ঠান প্রধান পরিবর্তন হওয়ায় পূর্বে প্রদত্ত তথ্যাদি সংশোধন করা আবশ্যক। এছাড়া পূর্বে বাদ পড়েছিলো বা নতুনভাবে অনুমোদন প্রাপ্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তথ্যাদিও সংগ্রহ করা আবশ্যক। এমতাবস্থায় দেশের সকল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারগণকে এসএমএসের মাধ্যমে ইতোমধ্যে প্রদত্ত User ID এবং Password ব্যাবহার করে NTRCA এর ওয়েবসাইট এ লগইন করে তাঁর সংশ্লিষ্ট উপজেলার বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তালিকা আগামী ২৬ শে জুলাই ২০১৮ তারিখের মধ্যে অবশ্যই অনলাইনে হালনাগাদ করণের জন্য অনুরোধ করা হলো। "

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ : ৩য় ধাপ


এরপর নিয়োগ প্রক্রিয়ার ৩য় পদক্ষেপ হিসেবে সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিদ্যমান শূন্য পদের তালিকা চেয়ে নোটিশ পাঠিয়েছে NTRCA। গত ২৬শে আগস্ট বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ বরাবর ইস্যু হওয়া নোটিশে বলা হয়েছে, " এতদ্বারা সংশ্লিষ্ট সকলকে জানানো যাচ্ছে যে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কতৃপক্ষ NTRCA ২য় বারের মত দেশের সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি)  শূন্য পদের বিপরীতে শিক্ষক নিয়োগ প্রদানের সুপারিশের কার্যক্রম শুরু করেছে। এ লক্ষ্যে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ হতে অনলাইনে শূন্য পদের চাহিদা (e-Requisition) আগামী ১৩/০৯/২০১৮ তারিখের মধ্যে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের User ID ও Password ব্যবহার করে NTRCA ওয়েবসাইটে প্রেরণের জন্য অনুরোধ করা হলো। যথাযথভাবে এ কাজটি সম্পাদনের জন্য বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ কতৃক NTRCA এর ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত নিয়মাবলী অনুসরণ করার অনুরোধ করা হলো। "
(e-Requisition) পাঠানোর ক্ষেত্রে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের কিছু নির্দেশনা জানিয়ে একই তারিখে অর্থাৎ ২৬শে আগস্ট ২০১৮ আরেকটি নোটিশ দেয় NTRCA। এতে বলা হয় :



  • সরকার নির্ধারিত মহিলা কোটা অনুসরণ করতে হবে।
  • জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ অনুসরণ করতে হবে।
  • জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ তে উল্লেখিত নব সৃষ্টপদে e-Requisition দেয়া যাবে না। তবে যে সমস্ত পদের নাম পরিবর্তন হয়েছে কিন্তু শিক্ষাগত যোগ্যতা একই আছে সে সকল পদের e-Requisition দেয়া যাবে।
  • যে সমস্ত পদের মঞ্জুরী আছে সে পদের বিপরীতে e-Requisition দিতে হবে।
  • চাহিত পদটি MPO অথবা Non MPO তা উল্লেখ করতে হবে।
  • মোট অনুমোদিত পদের নাম ও সংখ্যা উল্লেখ করতে হবে।
  • e-Requisition এর ক্ষেত্রে কোনো ভুল তথ্য প্রদান করলে তার দায়িত্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানের উপর বর্তাবে।
  • শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান কতৃক দাখিলকৃত e-Requisition সঠিক কিনা তা সংশ্লিষ্ট উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মনিটর করবেন।

এদিকে ই রিকুইজিশন প্রক্রিয়াটি মনিটর করার জন্য এবং নির্ভুলভাবে সম্পন্ন করার  জন্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারদের জন্যও কিছু নির্দেশনা জারি করে NTRCA।২৬শে আগস্ট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারদের প্রতি জারি হওয়া নোটিশে বলা হয় :

  • বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ কতৃক পালনীয় নির্দেশনাবলী সঠিকভাবে পালন করা হয়েছে কিনা তা মনিটর করা।
  • কোনো প্রতিষ্ঠান ভুল তথ্য উল্লেখ করলে তা প্রতিষ্ঠান প্রধানের মাধ্যমে সংশোধনের ব্যাবস্থা করা।
  • জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ অনুসরণ করা।
  • বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কতৃক দাখিলকৃত তথ্য সঠিক হয়েছে মর্মে প্রত্যয়ন মন্তব্য প্রদান করা।
এদিকে গত ১১/০৯/১৮ তারিখে  আরেকটি নোটিশের মাধ্যমে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শুন্য পদের চাহিদা প্রদানের সময়সীমা ২৩/০৯/১৮ তারিখ রাত ১২ টা পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়।

পরবর্তীতে আবার দ্বিতীয় দফায় শুন্য পদের চাহিদা প্রদানের সময় বৃদ্ধি করা হয়।তবে NTRCA থেকে বলা হয়েছিলো এটিই সর্বশেষ। এরপর আর সময় বৃদ্ধি করা হবেনা।২৩/০৯/১৮ তারিখের নোটিশের মাধ্যমে এ সময়সীমা ৩০/০৯/১৮ পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়।

অতঃপর এভাবেই শেষ হয় শুন্য পদের তালিকা গ্রহণের কাজ। বিভিন্ন সংবাদপত্রের দেয়া তথ্যমতে এ শুন্য পদের সংখ্যা প্রায় ৪০০০০।

নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হাজার হাজার চাকুরী প্রার্থী অপেক্ষা করতে থাকে কখন NTRCA হতে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চাকুরীতে নিয়োগের জন্য গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।


অপরদিকে পঁয়ত্রিশ উর্ধ নিবন্ধনকারীগণ আশংকায় দিনাতিপাত করতে থাকেন, মেধাতালিকায় নাম থাকা সত্ত্বেও তাদেরকে নিয়োগ থেকে বঞ্চিত করা হবে কারণ এমপিও নীতিমালা ২০১৮তে নিবন্ধনের বয়স নির্ধারণ করা হয়েছে।যদিও NTRCA এ বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলছিলোনা।আরো পড়ুন ntrca খবর

এদিকে কালের কণ্ঠ পত্রিকার খবরে জানা যায় তাদের প্রশ্নের জবাবে এনটিআরসিএ এর নতুন চেয়ারম্যান এস এম আশফাক হোসেন বলেছেন ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহেই ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার সার্কুলার প্রকাশ করা হবে।এর পরেই প্রকাশ করা হবে এনটিআরসিএ শিক্ষক নিয়োগ এর গণবিজ্ঞপ্তি।তিনি আরো বলেছিলেন যে প্রায় ৪০০০০ শুন্য পদ নিয়োগের অপেক্ষায় রয়েছে।দৈনিক শিক্ষার খবরে বলা হয় প্রথমে ডিসেম্বরে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে ফেব্রুয়ারির মধ্যেই নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন করা হবে।এরপর মার্চে আরেকটি শিক্ষক নিয়োগের গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।

সুপারিশপ্রাপ্ত শিক্ষকদের নিয়োগ কার্যক্রম ইতোমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে তবে মার্চের ২য় নিয়োগ সম্পর্কে এখনো কোনো নিশ্চিত বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে গত ২৮শে নভেম্বর প্রকাশিত হয় ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার ২০১৮।আবেদন গ্রহণ করা হয় ৫ই ডিসেম্বর থেকে ২৬শে ডিসেম্বর পর্যন্ত। দৈনিক শিক্ষার খবরে বলা হয় ২০১৯ সালের মধ্যে দুটি নিবন্ধন পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে।

বর্তমানে ntrca সর্বশেষ খবর হলো বৃহস্পতিবার ২৪শে জানুয়ারি প্রকাশিত হয়েছে ৪০০০০ বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের সুপারিশ।ফেব্রুয়ারিতেই কাজে যোগদান করেছেন সুপারিশপ্রাপ্ত শিক্ষকগণ।এনটিআরসিএ এর সর্বশেষ খবর জানতে সবসময় চোখ রাখুন সমকাল ব্লগে।

অনেক নাটকীয় ঘটনার পরে শেষ পর্যন্ত এনটিআরসিএ এর নতুন চেয়ারম্যান এস এম আশফাক হোসেন দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন।নিবন্ধনকারীদের অনেক আশা নতুন চেয়ারম্যানের কাছে।তবে দায়িত্ব গ্রহণ করেই আশার বাণী শুনিয়েছেন তিনি।এনটিআরসিএ এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে বলেছেন ডিসেম্বর ২০১৮ হতে ডিসেম্বর ২০১৯ সালের মধ্যেই ৬০০০০ শিক্ষক নিয়োগের লক্ষ্যমাত্রা গ্রহণ করেছে ntrca।

এদিকে বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের জন্য শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা ও নিয়োগ কার্যক্রম সহজ করতে আটটি বিভাগে স্পষ্টীকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)।বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে ময়মনসিংহ বিভাগের জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের নিয়ে স্পষ্টীকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে।পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে আটটি বিভাগে স্পষ্টীকরণ কর্মশালার আয়োজন করবে ntrca এমনটিই জানা গেছে।

স্পষ্টীকরণ কর্মশালায় সংশ্লিষ্ট বিভাগের জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের এনটিআরসিএ কর্তৃক পরিচালিত অনলাইন কার্যক্রমের বিভিন্ন ধাপ সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা দেয়া হবে ও তাদের মতামত সংগ্রহ করা হবে।এতে নিয়োগ কার্যক্রম আরো ত্রুটিমুক্ত হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

স্পষ্টীকরণ কর্মশালার পাশাপাশি ঐদিন গণশুনানির আয়োজনের কথা রয়েছে।এতে নিবন্ধনকারীদের উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে।ইতোপূর্বে সিলেটে প্রথম গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছিলো।এটি হবে ২য় গণশুনানি।এরপর পর্যায়ক্রমে অন্যান্য সকল বিভাগেই গণশুনানি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।





10 comments:

  1. Replies
    1. আপনাকেও ধন্যবাদ। নিয়মিত আপডেট খবর পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।

      Delete
  2. Thanks brother as published update news

    ReplyDelete
    Replies
    1. Thanks to read. Keep in touch with us to get regular update.

      Delete
  3. যারা ১৯--০২তারিখে আবেদন করতে পারেনি তাদের কি আর কিছু করার নেই। কেউ কি জানাবেন।

    ReplyDelete
    Replies
    1. তাদের আগামী নিয়োগের জন্য অপেক্ষা করা ছাড়া কিচ্ছু করার নেই।

      Delete
  4. জাতীয় মেধাতালিকা,তাও কীনা সর্বকালের সম্মিলিত তালিকায় আমাদের নাম প্রথম ৫০০বা ১০০০ জনের মধ্যে থেকেও যদি নন এমপিও পদে বেতনহীন ভাবে চাকরি করতে হয় তাহলে এই মেধা বা তার তালিকার দাম কি?
    যাদের বয়স ৩০ এর উপর তারা তো এটা নিয়ে অনেক আশাবাদী ছিল। এখন নন এমপিও দিয়ে তারা কি করবে? তাদের কি এই শিক্ষা আর জীবনের মূল্য নাই দেশে?

    ReplyDelete
    Replies
    1. এনটিআরসিএ এর নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে অনেক সমালোচনা আছে।নিবন্ধনকারীরা অনেক বৈষম্যের শিকার।

      Delete
  5. ২য় মেধা তালিকা প্রকাশ সম্পর্কে কি কিছু জানতে পারব স্যার ?

    ReplyDelete
    Replies
    1. এ বিষয়ে ntrca এখনো স্পষ্ট করে কিছু জানায়নি।

      Delete