Breaking

Tuesday, 14 January 2020

ntrca মেধা তালিকা ২০২০ (১ম-১৫তম) আপডেট করা হয়েছে

ntrca মেধাতালিকা

এনটিআরসিএ জাতীয় মেধা তালিকা হালনাগাদ করা হয়েছে

ntrca মেধা তালিকা ২০২০ বা জাতীয় মেধা তালিকা অনুযায়ী নিবন্ধন পরীক্ষায় নিজের অবস্থান দেখতে চান? এনটিআরসিএ জাতীয় মেধা তালিকা সর্বপ্রথম প্রকাশিত হয় ১০ই জুলাই ২০১৮ তে।


১ম থেকে ১৫ তম নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ সকল নিবন্ধনকারীর নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে এনটিআরসিএ মেধাতালিকায়। বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ ২০২০ সম্পন্ন করা হবে ১ম-১৫ তম নিবন্ধনকারীদের নিয়েই।

ntrca সর্বশেষ খবর হলো এনটিআরসিএ মেধা তালিকা সম্প্রতি হালনাগাদ করা হয়েছে। এতে পঞ্চদশ শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ নিবন্ধনকারীদের অন্তর্ভুক্ত করে এনটিআরসিএ এর মেধা তালিকা আপডেট করা হয়েছে।

১৫ই জানুয়ারি ২০২০ প্রকাশিত হয়েছে ১৫ তম নিবন্ধন পরীক্ষা এর চূড়ান্ত ফলাফল। এর পরপরই হালনাগাদ করা হলো ntrca মেরিট লিস্ট। আরো পড়ুন এনটিআরসিএ গণবিজ্ঞপ্তি ২০২০

ntrca এর মেধা তালিকা আপডেট হওয়ার পর ১ম-১৫ তম নিবন্ধনকারী অনেকের কাছ থেকেই শোনা গেছে যে মেধাতালিকায় তাদের অবস্থানের অবনতি হয়েছে। ১৫ তম নিবন্ধনকারীদের মধ্যে যাদের নম্বর বেশি তারা এন টি আর সি এ মেধা তালিকা য় উপরের দিকে অবস্থান করছেন।





আদালতের রায় অনুযায়ী প্রতিটি নিবন্ধন পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পর বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কতৃপক্ষ আপডেট করবে এনটিআরসিএ মেরিট লিস্ট।ntrca মেধা তালিকা ২০২০ অনুযায়ী আপনার বর্তমান অবস্থান জানতে ভিজিট করুন http://ngi.teletalk.com.bd/ntrca/merit/ ওয়েবসাইট।

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিয়োগ বিষয়ে একজন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের সাক্ষাৎকার নেয়া হয়েছিলো বেশ কিছুদিন পূর্বে। যদিও সাক্ষাৎকারটি বেশ পুরোনো তবুও বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গিয়েছিলো সেই সাক্ষাৎকারে। সমকাল ব্লগের পাঠকদের জন্য সাক্ষাৎকারটি তুলে ধরা হলো। সাক্ষাৎকারটি নিম্নরূপ :

বর্তমানে সকল নিবন্ধনকারীর প্রশ্ন, কবে কখন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগ দেবে NTRCA, কখন সার্কুলার বা গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হবে , শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে শুন্য পদের তালিকা চেয়েছে কিনা NTRCA ইত্যাদি। এসব বিষয় নিয়েই আজ কথা বলতে গিয়েছিলাম হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জনাব মোঃ কাওসার শোকরানার সঙ্গে। উল্লেখ্য বলা হয়ে থাকে হবিগঞ্জের বানিয়াচং বর্তমানে বিশ্বের বৃহত্তম গ্রাম। উপজেলা শিক্ষা অফিসারের সাথে আলোচনা করে যে তথ্যগুলো বেরিয়ে আসলো তাই এখন তুলে ধরছি পাঠকদের কাছে।

পরিচয় পর্ব এবং সৌজন্য বিনিময় সারার পরেই জিজ্ঞেস করলাম NTRCA থেকে তাঁদের কাছে, বেসরকারি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর শূন্যপদের তথ্য চেয়ে কোনো চিঠি এসেছে কিনা?

এনটিআরসিএ মেধা তালিকা
উপজেলা শিক্ষা অফিসার কাওসার শোকরানা

এখানে উল্লেখ্য যে অনেকেই বলছেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে শুন্য পদের তালিকা দিতে বলেছে NTRCA

আসলে এ তথ্য সম্পূর্ণ সঠিক নয়। তাঁর সাথে কথা বলে জানতে পারলাম শিক্ষা অফিসে চিঠি এসেছে ঠিকই এবং তথ্য চেয়েছে NTRCA। তবে সে চিঠি শুন্য পদের তালিকা চেয়ে নয় বরং সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণের নাম এবং ফোন নম্বর চেয়ে। এই তথ্যগুলো পাওয়ার পরেই সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণের নিকট শুন্য পদের চাহিদা চাইবে NTRCA। এর পরে হবে গণবিজ্ঞপ্তি।




জিজ্ঞেস করলাম কবে নাগাদ নিয়োগ হতে পারে বলে আপনার ধারণা? উত্তরে তিনি বললেন আশা করা যায় খুব দ্রুতই নিয়োগ সম্পন্ন হয়ে যাবে।

কথায় কথায় তিনি জানালেন গত ২০১৬ সালে ইরিকুইজিসনের সময় অনেক প্রতিষ্ঠান প্রধান ভুলক্রমে সৃষ্ট পদগুলোও শুন্য পদ হিসেবে দেখিয়েছিলেন। অথচ সৃষ্ট পদের এমপিও হয়না। ফলে যারা সেই সব পদে NTRCA থেকে নিয়োগের সুপারিশ পেয়েছিলেন তারা এমপিও পাননি। এজন্য এবারে বিষয়টি মাথায় রেখে সতর্কতার সাথে শুন্য পদের চাহিদা দিতে হবে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের।

এরপর তার কাছে শুনে নিলাম বানিয়াচং উপজেলায় কতগুলো বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর শুন্য পদের সংখ্যাও জেনে নিলাম। তবে তাঁর কাছে যে তথ্য রয়েছে তা বেশ পুরনো। এতে দেখা যাচ্ছে এমপিওভুক্ত কলেজ রয়েছে দুটি। আলিম মদ্রাসা রয়েছে একটি। এমপিওভুক্ত মাধ্যমিক উচ্চবিদ্যালয় ২২টি। দাখিল মাদ্রাসা রয়েছে ৩টি।

কিন্তু এতোগুলো প্রতিষ্ঠানে শুন্যপদ রয়েছে সে তুলনায় সামান্যই। জিজ্ঞেস করলাম এটাতো একবছর আগের তথ্য। বিগত একবছরে আর শুন্যপদ বাড়েনি? তিনি বললেন বড়জোর দু তিনটি বাড়তে পারে। তবে ননএমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ মোট শুন্য পদের সংখ্যা হবে প্রায় দ্বিগুণ।

আরো পড়ুন : ntrca নিয়োগ

এরচেয়ে বেশি তথ্য জানা সম্ভব নয় বুঝতে পেরে ধন্যবাদ জানিয়ে চলে আসতে চাইলাম কিন্তু ভদ্রলোক অমায়িক। আপ্যায়ন না করে ছাড়তে চাইলেন না। চমৎকার একটি পানীয় পান করালেন অনেকটা রুহ আফজার মতো দেখতে! তবে চিনতে পারলাম না। মনে হয় কোনো ধরনের ফ্রুট জুস হবে। অতঃপর কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বিদায় নিলাম।



আসলে যুগান্তর পত্রিকার হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার স্থানীয় প্রতিনিধি সোহেল ভাইয়ের সাথে দেখা হয়েছিলো আজ। বললাম চলেন একসঙ্গে একটি রিপোর্ট করে ফেলি! আপনি দেবেন যুগান্তরে আমি দেবো আমার সমকালে! জিজ্ঞেস করলেন কি বিষয়ে? বললাম NTRCA এবং বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগ প্রসঙ্গে। বললেন ঠিক আছে ভালোই হবে! ব্যাস্ত থাকায় বললেন আপনি আগে শিক্ষা অফিস থেকে তথ্য নিয়ে আসেন। সেখান থেকেই এই রিপোর্টের সূত্রপাত!

আরো পড়ুন : নিবন্ধনের বয়স নির্ধারণ


4 comments:

  1. গত ২০১৬ সালের গণ বিজ্ঞপ্তির পর একটা বাস্তব অভিজ্ঞতার আলোকে বলছি, যদি এনটিআরসিএ কর্তৃক নিয়োগে সিলেক্ট হওয়ার পরেও প্রতিষ্ঠান প্রধান অথবা প্রতিষ্ঠানের কোন কমিটি/সভাপতি/কোন শিক্ষা কর্মকর্তা নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন করার জন্য মিষ্টি খাওয়ার নাম করে কোন টাকা চায়, সেক্ষেত্রে সিলেক্ট হওয়া প্রার্থির কোন করণীয় কিছু আছে কী?

    ReplyDelete
    Replies
    1. অবশ্যই করনীয় আছে।বিষয়টি প্রথমে এনটিআরসিএ কতৃপক্ষকে জানাতে হবে এরপর তাদের পরামর্শ অনুযায়ী আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

      Delete
  2. ntrca এর মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগের ফলে প্রকৃত মেধাবীরা চাকুরী পাচ্ছে ঠিক কিন্তু চাকুরীর এমপিও কত বছর থাকবে তা নির্ধারিত নয়। কারণ কোন প্রতিষ্ঠানের এমপিও বাতিল হলে সে শিক্ষকও বেতন থেকে বঞ্চিত হবে।তাহলে বিসিএস এর মতো পরীক্ষা দিয়ে আমাদের কি লাভ?

    ReplyDelete
    Replies
    1. আপনার মন্তব্যর জন্য ধন্যবাদ। প্রতিষ্ঠান একবার এমপিও হওয়ার পর এমপিও বাতিল হওয়ার রেকর্ড খুবই কম। কাজেই এ বিষয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই।

      Delete