Breaking

Translate

Tuesday, 19 March 2019

March 19, 2019

NTRCA সর্বশেষ খবর : বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ সম্পর্কে সর্বশেষ খবর

NTRCA সর্বশেষ খবর : এনটিআরসিএ শিক্ষক নিয়োগ সম্পন্ন হয়েছে

ntrca_সর্বশেষ_খবর

ntrca সর্বশেষ খবর হলো বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ এর প্রক্রিয়া শুরু করেছে এনটিআরসিএ।ইতোমধ্যেই প্রথম নিয়োগ সম্পন্ন হয়েছে।কমিটির হাত থেকে নিয়োগের ক্ষমতা এনটিআরসিএ এর হাতে হস্তান্তরের পর নতুন বিধিমালা অনুযায়ী এটি ছিলো ২য় নিয়োগ।এর আগে সর্বপ্রথম ২০১৬ সালে নিয়োগের সুপারিশ করে তারা।কিন্তু সে নিয়োগের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ এনে উচ্চ আদালতে রীট করে কতিপয় নিবন্ধনকারী। আদালতের দীর্ঘ বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে বিগত ১৪ই ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখে NTRCA এর প্রতি কতিপয় নির্দেশনা সম্বলিত একটি রায় প্রদান করেছে আদালত। রায়ের আগ পর্যন্ত প্রায় দুই বছর নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ থাকায় হাজার হাজার নিবন্ধনকারী হতাশায় দিনাতিপাত করেছেন। অবশেষে আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হওয়ায় তাদের মাঝে কিছুটা স্বস্তি ফিরে এসেছে।

বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ : ১ম ধাপ


২০১৯ সালে এসে নতুন করে আবার বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ শুরু করেছে NTRCA। নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরুর প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে গত ১০ই জুলাই  আদালতের দেয়া নির্দেশনা অনুযায়ী এপর্যন্ত শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ সকল নিবন্ধনকারীর সমন্বয়ে তৈরি করা হয়েছে  ntrca মেধাতালিকা ২০১৯। মেধাতালিকাটি NTRCA এর ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। এতে নিজ নিজ বিষয়ে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে মেধাতালিকায় নিজের অবস্থান সহজেই দেখতে পাচ্ছেন নিবন্ধনকারীগণ। যদিও এ মেধাতালিকা নিয়ে কিছুটা বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছিলো এবং বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় নেতিবাচক খবরও প্রচারিত হয়েছিলো তবে NTRCA এ মেধাতালিকার বিষয়ে সকল অভিযোগ অস্বীকার করে এবং তাদের বক্তব্য ও জবাব তুলে ধরে নিজেদের ওয়েবসাইটে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে।

বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ : ২য় ধাপ




নিয়োগ প্রক্রিয়ার ২য় পদক্ষেপ হিসেবে গত ১৬ই জুলাই ২০১৮ তারিখে সারা দেশের সকল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারগণের নিকট একটি নোটিশ পাঠায় NTRCA। নোটিশের বিষয়বস্তু ছিলো বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ এবং প্রতিষ্ঠান প্রধানের তথ্য হালনাগাদকরণ প্রসঙ্গে। উক্ত নোটিশে বলা হয় ," খুব শীঘ্রই বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে এন্ট্রি লেভেলের শূন্য পদে শিক্ষক নিয়োগের জন্য সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হতে অনলাইনে চাহিদা (e-Requisition) সংগ্রহ করা হবে। সে প্রেক্ষিতে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানকে User ID এবং Password প্রদান করা হবে বিধায় EIIN সহ প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম এবং প্রতিষ্ঠান প্রধানের নাম ও মোবাইল ফোন নম্বর এনটিআরসি'র সংগ্রহে থাকা প্রয়োজন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ইতোপূর্বে ২০১৬ সালে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারগণের মাধ্যমে অনলাইনে এ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছিলো কিন্তু ইতোমধ্যে অনেক প্রতিষ্ঠান প্রধান পরিবর্তন হওয়ায় পূর্বে প্রদত্ত তথ্যাদি সংশোধন করা আবশ্যক। এছাড়া পূর্বে বাদ পড়েছিলো বা নতুনভাবে অনুমোদন প্রাপ্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তথ্যাদিও সংগ্রহ করা আবশ্যক। এমতাবস্থায় দেশের সকল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারগণকে এসএমএসের মাধ্যমে ইতোমধ্যে প্রদত্ত User ID এবং Password ব্যাবহার করে NTRCA এর ওয়েবসাইট এ লগইন করে তাঁর সংশ্লিষ্ট উপজেলার বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তালিকা আগামী ২৬ শে জুলাই ২০১৮ তারিখের মধ্যে অবশ্যই অনলাইনে হালনাগাদ করণের জন্য অনুরোধ করা হলো। "

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ : ৩য় ধাপ


এরপর নিয়োগ প্রক্রিয়ার ৩য় পদক্ষেপ হিসেবে সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিদ্যমান শূন্য পদের তালিকা চেয়ে নোটিশ পাঠিয়েছে NTRCA। গত ২৬শে আগস্ট বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ বরাবর ইস্যু হওয়া নোটিশে বলা হয়েছে, " এতদ্বারা সংশ্লিষ্ট সকলকে জানানো যাচ্ছে যে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কতৃপক্ষ NTRCA ২য় বারের মত দেশের সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি)  শূন্য পদের বিপরীতে শিক্ষক নিয়োগ প্রদানের সুপারিশের কার্যক্রম শুরু করেছে। এ লক্ষ্যে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ হতে অনলাইনে শূন্য পদের চাহিদা (e-Requisition) আগামী ১৩/০৯/২০১৮ তারিখের মধ্যে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের User ID ও Password ব্যবহার করে NTRCA ওয়েবসাইটে প্রেরণের জন্য অনুরোধ করা হলো। যথাযথভাবে এ কাজটি সম্পাদনের জন্য বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ কতৃক NTRCA এর ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত নিয়মাবলী অনুসরণ করার অনুরোধ করা হলো। "
(e-Requisition) পাঠানোর ক্ষেত্রে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের কিছু নির্দেশনা জানিয়ে একই তারিখে অর্থাৎ ২৬শে আগস্ট ২০১৮ আরেকটি নোটিশ দেয় NTRCA। এতে বলা হয় :



  • সরকার নির্ধারিত মহিলা কোটা অনুসরণ করতে হবে।
  • জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ অনুসরণ করতে হবে।
  • জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ তে উল্লেখিত নব সৃষ্টপদে e-Requisition দেয়া যাবে না। তবে যে সমস্ত পদের নাম পরিবর্তন হয়েছে কিন্তু শিক্ষাগত যোগ্যতা একই আছে সে সকল পদের e-Requisition দেয়া যাবে।
  • যে সমস্ত পদের মঞ্জুরী আছে সে পদের বিপরীতে e-Requisition দিতে হবে।
  • চাহিত পদটি MPO অথবা Non MPO তা উল্লেখ করতে হবে।
  • মোট অনুমোদিত পদের নাম ও সংখ্যা উল্লেখ করতে হবে।
  • e-Requisition এর ক্ষেত্রে কোনো ভুল তথ্য প্রদান করলে তার দায়িত্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানের উপর বর্তাবে।
  • শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান কতৃক দাখিলকৃত e-Requisition সঠিক কিনা তা সংশ্লিষ্ট উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মনিটর করবেন।

এদিকে ই রিকুইজিশন প্রক্রিয়াটি মনিটর করার জন্য এবং নির্ভুলভাবে সম্পন্ন করার  জন্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারদের জন্যও কিছু নির্দেশনা জারি করে NTRCA।২৬শে আগস্ট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারদের প্রতি জারি হওয়া নোটিশে বলা হয় :

  • বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ কতৃক পালনীয় নির্দেশনাবলী সঠিকভাবে পালন করা হয়েছে কিনা তা মনিটর করা।
  • কোনো প্রতিষ্ঠান ভুল তথ্য উল্লেখ করলে তা প্রতিষ্ঠান প্রধানের মাধ্যমে সংশোধনের ব্যাবস্থা করা।
  • জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ অনুসরণ করা।
  • বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কতৃক দাখিলকৃত তথ্য সঠিক হয়েছে মর্মে প্রত্যয়ন মন্তব্য প্রদান করা।
এদিকে গত ১১/০৯/১৮ তারিখে  আরেকটি নোটিশের মাধ্যমে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শুন্য পদের চাহিদা প্রদানের সময়সীমা ২৩/০৯/১৮ তারিখ রাত ১২ টা পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়।

পরবর্তীতে আবার দ্বিতীয় দফায় শুন্য পদের চাহিদা প্রদানের সময় বৃদ্ধি করা হয়।তবে NTRCA থেকে বলা হয়েছিলো এটিই সর্বশেষ। এরপর আর সময় বৃদ্ধি করা হবেনা।২৩/০৯/১৮ তারিখের নোটিশের মাধ্যমে এ সময়সীমা ৩০/০৯/১৮ পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়।

অতঃপর এভাবেই শেষ হয় শুন্য পদের তালিকা গ্রহণের কাজ। বিভিন্ন সংবাদপত্রের দেয়া তথ্যমতে এ শুন্য পদের সংখ্যা প্রায় ৪০০০০।

নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হাজার হাজার চাকুরী প্রার্থী অপেক্ষা করতে থাকে কখন NTRCA হতে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চাকুরীতে নিয়োগের জন্য গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।


অপরদিকে পঁয়ত্রিশ উর্ধ নিবন্ধনকারীগণ আশংকায় দিনাতিপাত করতে থাকেন, মেধাতালিকায় নাম থাকা সত্ত্বেও তাদেরকে নিয়োগ থেকে বঞ্চিত করা হবে কারণ এমপিও নীতিমালা ২০১৮তে নিবন্ধনের বয়স নির্ধারণ করা হয়েছে।যদিও NTRCA এ বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলছিলোনা।আরো পড়ুন ntrca খবর

এদিকে কালের কণ্ঠ পত্রিকার খবরে জানা যায় তাদের প্রশ্নের জবাবে এনটিআরসিএ এর নতুন চেয়ারম্যান এস এম আশফাক হোসেন বলেছেন ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহেই ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার সার্কুলার প্রকাশ করা হবে।এর পরেই প্রকাশ করা হবে এনটিআরসিএ শিক্ষক নিয়োগ এর গণবিজ্ঞপ্তি।তিনি আরো বলেছিলেন যে প্রায় ৪০০০০ শুন্য পদ নিয়োগের অপেক্ষায় রয়েছে।দৈনিক শিক্ষার খবরে বলা হয় প্রথমে ডিসেম্বরে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে ফেব্রুয়ারির মধ্যেই নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন করা হবে।এরপর মার্চে আরেকটি শিক্ষক নিয়োগের গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।

সুপারিশপ্রাপ্ত শিক্ষকদের নিয়োগ কার্যক্রম ইতোমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে তবে মার্চের ২য় নিয়োগ সম্পর্কে এখনো কোনো নিশ্চিত বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে গত ২৮শে নভেম্বর প্রকাশিত হয় ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার ২০১৮।আবেদন গ্রহণ করা হয় ৫ই ডিসেম্বর থেকে ২৬শে ডিসেম্বর পর্যন্ত। দৈনিক শিক্ষার খবরে বলা হয় ২০১৯ সালের মধ্যে দুটি নিবন্ধন পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে।

বর্তমানে ntrca সর্বশেষ খবর হলো বৃহস্পতিবার ২৪শে জানুয়ারি প্রকাশিত হয়েছে ৪০০০০ বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের সুপারিশ।ফেব্রুয়ারিতেই কাজে যোগদান করেছেন সুপারিশপ্রাপ্ত শিক্ষকগণ।এনটিআরসিএ এর সর্বশেষ খবর জানতে সবসময় চোখ রাখুন সমকাল ব্লগে।

অনেক নাটকীয় ঘটনার পরে শেষ পর্যন্ত এনটিআরসিএ এর নতুন চেয়ারম্যান এস এম আশফাক হোসেন দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন।নিবন্ধনকারীদের অনেক আশা নতুন চেয়ারম্যানের কাছে।তবে দায়িত্ব গ্রহণ করেই আশার বাণী শুনিয়েছেন তিনি।এনটিআরসিএ এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে বলেছেন ডিসেম্বর ২০১৮ হতে ডিসেম্বর ২০১৯ সালের মধ্যেই ৬০০০০ শিক্ষক নিয়োগের লক্ষ্যমাত্রা গ্রহণ করেছে ntrca।

এদিকে বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের জন্য শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা ও নিয়োগ কার্যক্রম সহজ করতে আটটি বিভাগে স্পষ্টীকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)।বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে ময়মনসিংহ বিভাগের জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের নিয়ে স্পষ্টীকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে।পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে আটটি বিভাগে স্পষ্টীকরণ কর্মশালার আয়োজন করবে ntrca এমনটিই জানা গেছে।

স্পষ্টীকরণ কর্মশালায় সংশ্লিষ্ট বিভাগের জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের এনটিআরসিএ কর্তৃক পরিচালিত অনলাইন কার্যক্রমের বিভিন্ন ধাপ সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা দেয়া হবে ও তাদের মতামত সংগ্রহ করা হবে।এতে নিয়োগ কার্যক্রম আরো ত্রুটিমুক্ত হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

স্পষ্টীকরণ কর্মশালার পাশাপাশি ঐদিন গণশুনানির আয়োজনের কথা রয়েছে।এতে নিবন্ধনকারীদের উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে।ইতোপূর্বে সিলেটে প্রথম গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছিলো।এটি হবে ২য় গণশুনানি।এরপর পর্যায়ক্রমে অন্যান্য সকল বিভাগেই গণশুনানি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।





Monday, 18 March 2019

March 18, 2019

১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার ২০১৮ প্রকাশিত | আবেদন শেষ পরীক্ষা এপ্রিলে

শিক্ষক_নিবন্ধন_পরীক্ষা

শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার ২০১৮ প্রকাশিত হয়েছে।প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ১৯ শে এপ্রিল




শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার ২০১৮ প্রকাশ করেছে NTRCA।এটি ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার। শিক্ষক নিবন্ধন ২০১৮ সম্পর্কে কালের কন্ঠ পত্রিকার পক্ষ থেকে এনটিআরসিএ চেয়ারম্যান এস এম আশফাক হুসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি পত্রিকাটিকে জানিয়েছিলেন ডিসেম্বর ২০১৮ এর প্রথম সপ্তাহেই প্রকাশিত হবে ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার।বলা হয়েছিলো বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের সাথে সাথেই আবেদন প্রক্রিয়া সহ বিস্তারিত আলোচনা করা হবে আমাদের সমকাল ব্লগে।

এদিকে ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা ২০১৮ এর প্রিলিমিনারি ও লিখিত পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে।স্কুল ও স্কুল ২ এর প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ১৯ এপ্রিল ২০১৯ শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত।কলেজ পর্যায়ের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে একই দিনে বিকেল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত।নিচে বিজ্ঞপ্তিটি দেয়া হয়েছে।বিস্তারিত দেখুন ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে।

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ২০১৮ বিজ্ঞপ্তি

২৮শে নভেম্বর ২০১৮ পঞ্চদশ শিক্ষক নিবন্ধনের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কতৃপক্ষ ntrca। বলা হয়েছে ৫ই ডিসেম্বর বিকেল ৩.০০ থেকে ২৬শে ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬.০০ পর্যন্ত চলবে আবেদন প্রক্রিয়া। আবেদন ফী নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫০ টাকা। আবেদনের নিয়ম বিস্তারিত বর্ণনা করা হয়েছে বিজ্ঞপ্তিটিতে। এনটিআরসিএ অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন বিজ্ঞপ্তি ডাউনলোড করে নিন।

শিক্ষক নিবন্ধন রেজাল্ট ১৪তম

এদিকে মঙ্গলবার ২৭ নভেম্বর প্রকাশিত হয়েছে ১৪তম নিবন্ধনের চূড়ান্ত মৌখিক পরীক্ষার ফলাফল।এতে ১৮ হাজার ৩১২ জন প্রার্থী উত্তীর্ণ হয়েছেন। উত্তীর্ণদের মধ্যে রয়েছেন স্কুল পর্যায়ে ১৪ হাজার ১৭৮ জন, স্কুল-২ পর্যায়ে ৫৫৪ জন  এবং কলেজ পর্যায়ে ৩ হাজার ৫৮০ জন।শুরু হয়েছে ১৪তম নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের সনদপত্র বিতরণ।এনটিআরসিএ অফিস থেকে সনদপত্রগুলো জেলা শিক্ষা অফিসগুলোতে পাঠানো হচ্ছে।সনদপত্র সংগ্রহ করতে নিবন্ধনকারীদের অবশ্যই সকল একাডেমিক সার্টিফিকেট, নিবন্ধন পরীক্ষার তিনটি প্রবেশপত্র এবং ভোটার আইডি কার্ড সঙ্গে নিতে হবে।সরাসরি জেলা শিক্ষা অফিসে উপস্থিত হয়ে নিবন্ধন সার্টিফিকেট সংগ্রহ করতে হবে।

১২তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা থেকে নিবন্ধন পরীক্ষায় কিছু পরিবর্তন এনেছে এনটিআরসিএ। এর পূর্বে প্রিলিমিনারি এবং লিখিত পরীক্ষা একদিনে এবং এক সঙ্গেই নেয়া হতো।




শিক্ষক নিবন্ধন ২০১৮ পরীক্ষা পদ্ধতি

১২তম নিবন্ধন পরীক্ষা থেকে প্রিলিমিনারি এবং লিখিত পরীক্ষা আলাদাভাবে নেয়া হচ্ছে। বিসিএসের আদলে প্রথমে ১০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় পাস করতে হয়। এরপর লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাওয়া যায়। আবার ১৩তম নিবন্ধন পরীক্ষা থেকে প্রিলিমিনারি, লিখিত পরীক্ষার পর আবার ভাইবা বা মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। নতুন নিয়ম অনুযায়ী প্রিলিমিনারি, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পরই পাওয়া যাবে নিবন্ধনের চূড়ান্ত সনদপত্র।বেসরকারি এমপিওভুক্ত অথবা নন এমপিও স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসায় শিক্ষক পদে চাকুরী করতে হলে NTRCA প্রদত্ত এই নিবন্ধন সনদপত্র অর্জন করা বাধ্যতামূলক।

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়াতেও এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন। পূর্বে এসব প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার চূড়ান্ত এক্তিয়ার ছিলো প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির হাতে। বর্তমানে ২০১৬ সাল থেকে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগের সুপারিশের ক্ষমতা দেয়া হয়েছে এনটিআরসিএ 'র কাছে।





নিবন্ধন পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে তৈরি  মেধাতালিকা অনুযায়ী নিয়োগের সুপারিশ করবে NTRCA। এজন্য নিবন্ধন পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর এখন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক হওয়ার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগের সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি জানতে পড়ুনঃ

এজন্য বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক হতে চাইলে নিবন্ধন পরীক্ষায় ভালো নম্বর পাওয়ার জন্য পরিপূর্ণ প্রস্তুতির প্রয়োজন।নিবন্ধন পরীক্ষার প্রস্তুতিতে সহায়তার জন্য আমাদের ওয়েবসাইটে বিস্তারিত গাইডলাইন প্রকাশ করা হবে যদি আপনারা চান।এজন্য কমেন্ট করে আপনার মতামত জানাতে পারেন।নিবন্ধন পরীক্ষা এবং বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের সর্বশেষ তথ্য জানতে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন।আমাদের পরামর্শ হলো যারা ১৫তম নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে চান তারা আবেদনের শেষ তারিখ অর্থাৎ ২৬শে ডিসেম্বরের অপেক্ষা না করে যত দ্রুত সম্ভব আবেদন করে ফেলুন।কারণ অতীতের অভিজ্ঞতা থেকে জানা যায় ntrca এর ওয়েবসাইট অনেকসময় ডাউন হয়ে যায়।ফলে চাইলেও নিজের ইচ্ছেমত সময়ে আবেদন করা সম্ভব নাও হতে পারে।

১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন ২০১৮ প্রবেশপত্র ডাউনলোড




১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন ২০১৮ এর আবেদন প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে আগেই।জানা গেছে আবেদন করেছেন ১০ লক্ষ প্রার্থী।প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ১৯শে এপ্রিল।পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশিত হওয়ার পর আমাদের সমকাল ব্লগেও তা জানিয়ে দেয়া হলো।ntrca থেকে শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশের পরেই ডাউনলোড করা যায় পরীক্ষার জন্য প্রবেশপত্র।

প্রিলিমিনারি পরীক্ষার মতো ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা ২০১৮ এর লিখিত পরীক্ষার তারিখও ঘোষণা করা হয়েছে।স্কুল ও স্কুল ২ এর লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ২৬শে জুলাই ২০১৯ শুক্রবার সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত।কলেজ পর্যায়ের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ২৭শে জুলাই শনিবার সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত।
১৫তম_শিক্ষক_নিবন্ধন_পরীক্ষা

প্রবেশপত্র ডাউনলোড করুন

Sunday, 17 March 2019

March 17, 2019

মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ দেখুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ওয়েবসাইটে

মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষার রেজাল্ট


মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯,জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ দেখুন সমকাল ব্লগে।যারা মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষা ২০১৮ দিয়েছেন তাদের জন্য এই লেখাটি।মাস্টার্স ফাইনাল ফলাফল ২০১৯ প্রকাশিত হয়েছে ১৩ মার্চ বুধবার।মাস্টার্স শেষ পর্ব রেজাল্ট ২০১৯ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে সমকাল ব্লগে।এখানে পাবেন মাস্টার্স রেজাল্ট দেখার নিয়ম এবং মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষার রেজাল্ট।
অনার্স ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষার রুটিন ২০১৯
ডিগ্রী ১ম বর্ষ পরীক্ষার রুটিন ২০১৯

মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ পরীক্ষা

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স শেষ পর্বের পরীক্ষা অনু্ষ্ঠিত হয়েছে ২৭শে অক্টোবর ২০১৮ থেকে ৮ই ডিসেম্বর ২০১৮ পর্যন্ত।৩১টি বিষয়ে মোট ২ লাখ পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পরীক্ষায়।



২০১৬ সালের মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষার রেজাল্ট

২০১৬ সালের এবং ২০১৫-১৬ শিক্ষা বর্ষের জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে ২০১৮ সালে।মাস্টার্স ফাইনাল ফলাফল ২০১৯ দেখার সহজ উপায় বর্ণনা করা হয়েছে সমকাল ব্লগে।

মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ দেখুন এসএমএস এর মাধ্যমে

মাস্টার্স শেষ পর্বের ফলাফল দেখার জন্য সহজ পদ্ধতি হলো মোবাইল ফোনের এসএমএস পদ্ধতি।এসএমএসের মাধ্যমে মাস্টার্স ফাইনাল ফলাফল দেখার পদ্ধতি দেখানো হয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে।আমাদের সমকাল ব্লগেও তা তুলে ধরা হলো।
  • প্রথমে মোবাইলের এসএমএস অপশনে টাইপ করুন NU MF Registration/Roll number
  • পাঠিয়ে দিন ১৬২২২ নম্বরে
  • উদাহরণ : NU MF 0123456 [Send to 16222]

মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ দেখুন অনলাইনে




জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল রেজাল্ট অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়।মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ মার্কশীটসহ বিস্তারিত দেখতে
  1. প্রথমে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অফিশিয়াল ওয়েবসাইট www.nu.ac.bd/results/ওপেন করতে হবে
  2. বামপাশের সাইড বার থেকে Masters সিলেক্ট করতে হবে
  3. এরপর Masters Final সিলেক্ট করতে হবে
  4. এরপর Individual Result সিলেক্ট করতে হবে
  5. Registration/Roll Number দিতে হবে
  6. Exam Year সিলেক্ট করতে হবে
  7. সর্বশেষ ক্যাপচা কোড বসিয়ে Search Result এ ক্লিক করলেই দেখা যাবে কাঙ্ক্ষিত রেজাল্ট

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় রেজাল্ট থেকে প্রাপ্ত গ্রেড থেকে সিজিপিএ হিসাব করার জন্য নিচের ভিডিওটি দেখতে পারেন

মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ সম্পর্কে আরো কোনো প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন আমাদের।
মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯




March 17, 2019

NTRCA কতৃক বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া ২০১৯

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিয়োগ সুপারিশ প্রকাশিত। ntrca e-result দেখুন এখানে

NTRCA news NTRCA খবর বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ ২০১৮

ntrca update news সর্বশেষ কি জানতে চান?শিক্ষক নিয়োগ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে এনটিআরসিএ।আবেদন প্রক্রিয়াও সম্পন্ন হয়েছে। এখন শোনা যাচ্ছে শুধু সহকারী শিক্ষকই নয় বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পিয়ন,সহকারী শিক্ষক এমনকি প্রধান শিক্ষক / অধ্যক্ষ সহ সকল শ্রেণীর কর্মকর্তা, কর্মচারী নিয়োগের সুপারিশ করবে ntrca সকল  বিস্তারিত জানতে সম্পূর্ণ প্রতিবেদনটি পড়ুন মনোযোগ দিয়ে।

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কতৃপক্ষ NTRCA এর বিরুদ্ধে নিবন্ধনকারীদের হাইকোর্টে করা রীট পিটিশনের রায় প্রকাশ হওয়ার পর রায় বাস্তবায়ন এবং বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের পদ্ধতি নিয়ে নিবন্ধনকারীদের মধ্যে চলছিলো নানারকম জল্পনা কল্পনা।সবার প্রশ্ন ছিলো রায় বাস্তবায়নে কিভাবে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবে NTRCA?কেউ কেউ নিয়োগে রীটকারীদের অগ্রাধিকার থাকবে বললেও রায় বিশ্লেষণে দেখা যাচ্ছে রায় সার্বজনীন হয়েছে অর্থাৎ নিয়োগের ক্ষেত্রে রীটকারী ননরীটকারী নির্বিশেষে  সকল নিবন্ধনকারীদের সমানভাবে একটি সমন্বিত জাতীয় মেধাতালিকার ভিত্তিতে নিয়োগ দেয়া হবে।



এবার চলুন প্রকাশিত রায়ের আলোকে সম্ভাব্য নিয়োগ প্রক্রিয়াটি খতিয়ে দেখা  যাক। রায়ের শেষের দিকে বলা আছে " It is very much notable that the NTRCA certification process has began for quite some time since 2005 and by now 13 batches have entered the examinations and there must be a concrete upto date data base, so that the latest merit list as per subject I.e. subject wise merit list be available and that should be made /published through publication in the official web page. "

ভাবানুবাদ : ইহা খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে এনটিআরসিএর সনদ প্রদান প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে অল্প কিছুদিন হলো ২০০৫ সাল থেকে এবং এখন পর্যন্ত ১৩টি ব্যাচ পরীক্ষা দিয়েছে। সেখানে অবশ্যই একটি নিরেট হালনাগাদ করা তথ্যভান্ডার থাকতে হবে যাতে বিষয়ভিত্তিক সর্বশেষ মেধাতালিকা বিদ্যমান থাকে এবং তা এনটিআরসিএর ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে হবে!

এখানে স্পষ্ট বলা হয়েছে কাদেরকে নিয়ে মেধাতালিকা হবে। ২০০৫ সালের ১ম নিবন্ধন থেকে এখন পর্যন্ত উত্তীর্ণ সকল নিবন্ধনকারীদের নিয়ে বিষয়ভিত্তিক মেধাতালিকা করা হবে (যার মধ্যে রীটকারীদেরও নাম থাকবে তবে অবশ্যই তাদের প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে)। প্রতি বছর এই মেধা তালিকা আপডেট করবে এনটিআরসিএ।



এখন মজার বিষয় হলো এই মেধাতালিকা থেকে নিয়োগ দেবে কিভাবে? আপনাদের কি মনে হয় মেধাতালিকা থেকে নিজেদের পছন্দমত বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সরাসরি নিয়োগ দেবে তারা?কাকে কিভাবে কোন প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ দেবে?এর উত্তরও আছে রায়ের একেবারে শেষ অংশে।
"Every time the advertisement is made upon preparing the requirement list on demand from the educational institutions, the applicants should have access to the list and would apply according to their choices and be chosen as per national merit list that is updated every year."

ভাবানুবাদ : প্রত্যেকবার নিয়োগের বিজ্ঞাপন প্রকাশ করতে হবে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চাহিদাপত্র প্রস্তুতের ভিত্তিতে। শুন্য পদের তালিকা প্রার্থীদের জন্য উন্মুক্ত হতে হবে এবং প্রার্থী তার পছন্দমত প্রতিষ্ঠানে আবেদন করবে। প্রতি বছরের সর্বশেষ হালনাগাদ করা জাতীয় মেধাতালিকা হতে তাদের নির্বাচন করতে হবে। 



তার মানে কি বুঝলেন? মেধাতালিকায় নাম থাকা একজিনিস আর নিয়োগ হওয়া আরেক জিনিস। মেধাতালিকায় ১ম থেকে বর্তমানের ১৪তম পর্যন্ত উত্তীর্ণ সকলেরই নাম থাকবে। কারো নামই বাদ পড়বে না।তবে বিষয়ভিত্তিক করা এই মেধাতালিকায় নামগুলো থাকবে প্রাপ্ত নম্বরের ক্রমানুসারে। প্রতি বছর তালিকা আপডেট হওয়ার সময় কারো নাম যাবে উপরে আবার কারো নাম নিচে নেমে আসবে।তালিকায় আপনার অবস্থান প্রতি বছর পরিবর্তন হতে থাকবে চাকুরী হওয়ার আগ পর্যন্ত!এই তালিকা হবে ওয়েবসাইটে প্রকাশিত, উন্মুক্ত! এখানে রীটকারী ননরিটকারী বৈষম্যের কোনো সুযোগ নেই!

এ তো গেলো মেধা তালিকার কথা! এখন আসুন নিয়োগের কথায়!২য় অনুবাদ পড়ে বুঝতে পারছেন নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি দেয়া হবে শুন্যপদের প্রেক্ষিতে।এবারো নিজের পছন্দমত প্রতিষ্ঠানগুলোতে আবেদন করতে হবে। এরপর প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের আবেদনকারীদের মধ্য থেকে জাতীয় মেধাতালিকা অনুযায়ী প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে নিয়োগ দেয়া হবে!এবার নতুন নিয়মে একটাই পার্থক্য থাকবে আর তা হলো জেলা, উপজেলা কোটা বিলুপ্ত হবে! 

এ থেকে বোঝা যাচ্ছে মেধাতালিকায় নাম থাকার অর্থ নিয়োগ পাওয়া নয়।কারণ মেধাতালিকায় ১ম থেকে সর্বশেষ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ নিবন্ধনকারী সকলেরই নাম থাকবে প্রাপ্ত নম্বরের ক্রমানুসারে। নিয়োগের জন্য নিজ নিজ পছন্দের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আবেদন করতে হবে। সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে আবেদনকারীদের মধ্য থেকে সর্বোচ্চ নম্বর প্রাপ্ত প্রার্থীকে নিয়োগ দেয়া হবে বিষয়ভিত্তিক সমন্বিত জাতীয় মেধাতালিকা অনুযায়ী। 



উল্লেখ্য আদালত NTRCA কে রায়ের কপি হাতে পাওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে এই মেধাতালিকা প্রকাশ করতে বলেছে। এর অর্থ এই নয় যে উক্ত ৯০ দিনের মধ্যে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। নিয়োগ প্রক্রিয়া ভিন্ন বিষয় যা আগেই বলা হয়েছে।
আরো পড়ুন : ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার ২০১৮

আলোচিত মেধা তালিকার আরেকটি বৈশিষ্ট্য হলো এ তালিকায় নম্বরের দিক থেকে এগিয়ে থাকাই চাকুরী নিশ্চিত হওয়ার একমাত্র মাধ্যম নয়। আপনি যে প্রতিষ্ঠানে আবেদন করবেন সেই প্রতিষ্ঠানে আপনার চেয়ে বেশি নম্বর প্রাপ্ত কেউ আবেদন করে থাকলে তার চাকুরীই নিশ্চিত হবে। আবার উক্ত প্রতিষ্ঠানে আপনিই সর্বোচ্চ নম্বরপ্রাপ্ত আবেদনকারী হলে আপনার চাকুরীই নিশ্চিত হবে! সহজ কথায় আপনার নিয়োগ নির্ভর করবে জাতীয় মেধাতালিকায় আপনার অবস্থানের উপর নয় বরং আপনি যে প্রতিষ্ঠানগুলোতে আবেদন করছেন সেই প্রতিষ্ঠানগুলোতে  আবেদন করা অন্যান্য প্রার্থীদের সাথে আপনার নম্বরের পার্থক্যের উপর। অর্থাৎ আপনাকে সারা বাংলাদেশের সকল নিবন্ধনকারীর সাথে প্রতিযোগিতা করতে হবেনা।প্রতিযোগিতা করতে হবে যেসকল প্রতিষ্ঠানে আবেদন করবেন সেসকল প্রতিষ্ঠানে আবেদন করা অন্যান্য প্রার্থীদের সাথে।উদাহরণ হিসেবে বলা যায় ধরুন আপনার প্রাপ্ত নম্বর ৫৫।আপনি যে প্রতিষ্ঠানে আবেদন করেছেন সেখানে আরো চারজন আবেদন করেছেন যাদের নম্বর যথাক্রমে ৪৯,৫০,৫২,৫৪।সেক্ষেত্রে উক্ত প্রতিষ্ঠানে ৫৫ নম্বর পেয়েই নিয়োগ হবে আপনার।আবার ২য় আরেকজন ব্যাক্তির প্রাপ্ত নম্বর ৬৫।কিন্তু সে যে প্রতিষ্ঠানে আবেদন করেছে সেখানে আবেদনকারীদের মধ্যে একজনের নম্বর ৬৬।সেক্ষেত্রে ৬৫ নম্বর পেয়েও চাকরি হবেনা ২য় ব্যাক্তির।

আরো পড়ুন : নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সর্বোচ্চ বয়স ৩৫ নাকি চাকুরীতে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স ৩৫?


ntrca update news সর্বশেষ কি

এই প্রতিবেদনটি লেখা হয়েছিলো অনেকদিন আগে। যখন সবেমাত্র আদালতের রায় প্রকাশিত হয়েছিলো।সেসময় সকল নিবন্ধনকারীই অন্ধকারে ছিলেন নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে।কেউই বুঝতে পারছিলেন না কিভাবে কোন পদ্ধতিতে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবে ntrca।এই প্রতিবেদনটিই ছিলো অনলাইনে এ বিষয়ে সর্বপ্রথম স্পষ্ট বিশ্লেষণ।

আপনারা জেনে খুশি হবেন যে এই প্রতিবেদনের প্রতিটি বক্তব্যই পরবর্তীতে বাস্তবে ঘটা নিয়োগ প্রক্রিয়ার সাথে হুবহু মিলে যাচ্ছে।ইতোমধ্যেই এনটিআরসিএ মেধাতালিকা প্রকাশিত হয়েছে।সারা দেশের সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শুন্য পদের তালিকা সংগ্রহের কাজও সম্পন্ন করেছে ntrca।সকল সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী সারা দেশ থেকে প্রায় ৩৯০০০ শুন্য পদের চাহিদা পাওয়া গেছে।এনটিআরসিএ এর দেয়া পূর্বের তথ্য অনুযায়ী বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ এর গণবিজ্ঞপ্তিও প্রকাশ করা হয়েছে গত ডিসেম্বরের ১৮ তারিখে।

এবং নিবন্ধনকারীগণ আবেদন করেছেন ১৯/১২/২০১৮ থেকে ০২/১২/২০১৯ তারিখ পর্যন্ত।এতে সেসকল নিবন্ধনকারী আবেদন করতে পেরেছেন যাদের বয়স ১২ই জুন ২০১৮ পর্যন্ত ৩৫ অথবা তার কম।

আবেদন ফী নির্ধারণ করা হয়েছে ১৮০ টাকা।যথারীতি গত নিয়োগের মতো এবারও একজন প্রার্থী যতখুশি তত প্রতিষ্ঠান এবং পদে আবেদন করতে পেরেছেন।এলাকা ভিত্তিক কোনো কোটা প্রযোজ্য হবেনা।তবে এবারের ভিন্ন একটি সংযোজন হলো আবেদনের ক্ষেত্রে চয়েসের ক্রম উল্লেখ করতে হবে।বিষয়টি বুঝতে কারো সমস্যা হলে কমেন্ট করে জানান উত্তর দেয়া হবে।

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ডাউনলোড,আবেদনের বিস্তারিত নিয়ম কানুন জানতে, শুন্য পদের তালিকা, মেধাতালিকা দেখতে এবং সরাসরি আবেদন করতে ntrca official website ভিজিট করুন।

যারা আবেদন করেছেন তাদের জন্য সুখবর হলো জানুয়ারি ২০১৯ এর মধ্যেই আবেদনের ফলাফল ঘোষণা করার কথা বলা হয়েছিল  এবং সুপারিশ পাওয়ার এক মাসের মধ্যেই নিয়োগ দেয়া হবে উত্তীর্ণদের।

ntrca news

এদিকে একের পর এক মামলার সম্মুখীন হওয়ায় এবং ব্যাপকভাবে সমালোচনার মুখে পড়ায় জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশলের অনুসরণে গণশুনানি আয়োজন করতে যাচ্ছে ntrca।সারাদেশে ৮টি বিভাগে পর্যায়ক্রমে আয়োজন করা হবে এনটিআরসিএ গণশুনানি।ইতোমধ্যেই এ সংক্রান্ত একটি নোটিশ প্রকাশ করেছে ntrca।বলা হয়েছে প্রথম গণশুনানি অনু্ষ্ঠিত হবে সিলেটে।২৪/০১/১৯ তারিখে সিলেট জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ৪ টা ৪৫ মিনিটে অনুষ্ঠিতব্য গণশুনানিতে সিলেট বিভাগের সকল নিবন্ধনকারীদের উপস্থিত থাকার জন্য বলা হয়েছে।এতে এনটিআরসিএ এর উর্ধতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত থাকবেন।প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থানবেন এনটিআরসিএ চেয়ারম্যান জনাব এস এম আশফাক হোসেন।।গণশুনানিতে নিবন্ধনকারীদের কাছ থেকে তাদের সমস্যা,অভিযোগ,আবেদন ইত্যাদি শোনা হবে এবং পরবর্তীতে সে অনুযায়ী ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে!

ntrca e-result

অবশেষে ২৪শে জানুয়ারি প্রকাশিত হয়েছে এনটিআরসিএ ২য় চক্রের বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের সুপারিশ।সুপারিশ প্রাপ্তদের এবং সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হয়েছে।এছাড়াও এনটিআরসিএ এর ওয়েবসাইটে আবেদনের রেজাল্ট দেখা যাচ্ছে।আপনার e-result দেখতে এখানে ক্লিক করে নিজের ব্যাচ নং এবং রোল নং দিন।


এদিকে শুধু এন্ট্রি লেভেলের সহকারী শিক্ষকই নয় বরং বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সকল পদেই এনটিআরসিএ কতৃক নিয়োগ দেয়ার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে!এ বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রীর ইতিবাচক সাড়া রয়েছে।এ সংক্রান্ত কার্যপ্রণালী চূড়ান্ত করতে গত ৫ই মার্চ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে বৈঠক হওয়ার বিষয়েও খবর পাওয়া গেছে।

জানা গেছে এ বিষয়টি চূড়ান্ত হলে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পিয়ন থেকে শুরু করে প্রধান শিক্ষক / অধ্যক্ষ নিয়োগের সুপারিশও করবে এনটিআরসিএ।দৈনিক শিক্ষার খবরে জানা গেছে মন্ত্রণালয়ের বৈঠক থেকে ইতোমধ্যেই এ সংক্রান্ত প্রস্তাব প্রেরণের জন্য এনটিআরসিএ কে নির্দেশ দেয়া হয়েছে এবং প্রস্তাব পাঠানোর প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে এনটিআরসিএ থেকে।

ntrca সর্বশেষ খবর জানতে সবসময় সমকাল ব্লগের সাথেই থাকুন।




Saturday, 16 March 2019

March 16, 2019

বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ ২০১৯ প্রকাশিত | ডাউনলোড করুন বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2019

বাংলাদেশ_রেলওয়ে

বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে। যারা বাংলাদেশ রেলওয়ে বিভাগে নিজেদের ক্যারিয়ার গড়তে চান তাঁদের জন্য সুখবর হলো বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ ২০১৯ প্রকাশিত হয়েছে।

বর্তমানে বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ 2019 অনুযায়ী দুটি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে রেলওয়ে মন্ত্রণালয়।নিচে পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯ এর বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2019 ছাড়াও প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ ২০১৮ সার্কুলার,সেনাবাহিনী নিয়োগ ২০১৯,পুলিশ নিয়োগ সার্কুলার ২০১৯,পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2019 সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পড়ুন সমকাল ব্লগ।



বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ ২০১৯

নিচে ১৩/০৩/১৯ তারিখে প্রকাশিত বাংলাদেশ রেলওয়ে,সিআরবি,চট্টগ্রাম নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির বিস্তারিত দেয়া হলো।
পদের নাম পদ সংখ্যা বেতন শিক্ষাগত যোগ্যতা
সহকারি লোকোমোটিভ
মাস্টার গ্রেড ২
৫৬ ৯০০০-২১৮০০ এইচএসসি বিজ্ঞান
বা সমমান
রিভেটার গ্রেড ২ ১৪ ৯৭০০-২৩৪৯০ এসএসসি
সহ ট্রেড
সনদ
সহকারি মৌলভী ০১ ৯৭০০-২৩৪৯০ এসএসসি
সহ ফাজিল
আলিম
টাইটেল পাস
লাইব্রেরিয়ান ০৮ ৯৭০০-২৩৪৯০ ডিপ্লোমা ইন লাইব্রেরি ২য় বিভাগ
ফুয়েল চেকার ০১ ৯৩০০-২২৪৯০ এইচএসসি
বা সমমান
টিকেট ইস্যুয়ার ০৪ ৮৮০০-২১৩১০ এসএসসি অথবা সমমান
এম এস ০৩ ১০২০০-২৪৬৮০ এইচএসসি অথবা সমমান
শর্তাবলী :
  • চাকুরীর আবেদন ফরম, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার প্রবেশপত্র বাংলাদেশ রেলওয়ে ওয়েবসাইট www.railway.gov.bd থেকে সংগ্রহ করতে হবে।
  • সম্প্রতি তোলা পাসপোর্ট সাইজের তিন কপি ছবি আবেদনপত্র এবং প্রবেশপত্রের নির্ধারিত স্থানে পেস্ট করে দিতে হবে।
  • পরীক্ষার ফি বাবদ ১০০/= টাকা ট্রেজারি চালানের কপি আবেদনপত্রের সাথে প্রেরণ করতে হবে।
  • পরীক্ষার পূর্ণমান ১০০।লিখিত ৬০ মৌখিক ৪০।লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় আলাদাভাবে ৫০% নম্বর পাস নম্বর হিসেবে বিবেচিত হবে।
  • আবেদনপত্র আগামী ০৮/০৪/১৯ তারিখ বিকেল ৫.০০ ঘটিকার মধ্যে "চীফ পার্সোনেল অফিসার/পূর্ব,বাংলাদেশ রেলওয়ে,সিআরবি,চট্টগ্রাম এর দপ্তরে পৌঁছাতে হবে।
  • লিখিত পরীক্ষা রাজশাহী ও চট্রগ্রামে অনুষ্ঠিত হবে।
  • আবেদনকারীর বয়স ০৮/০৪/১৯ তারিখ পর্যন্ত ১৮ থেকে ২০ এর মধ্যে হতে হবে।





আরো বিস্তারিত জানতে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯।
বাংলাদেশ-রেলওয়ে-নিয়োগ

বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ 2019

০৩/০৩/১৯ তারিখে বাংলাদেশ রেলওয়ে, পশ্চিমাঞ্চল, রাজশাহী থেকে আরেকটি বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ 2019 প্রকাশিত হয়েছে।বিস্তারিত নিচে আলোচনা করা হলো।

  • টিএক্সআর পদে ৭ জন নিয়োগ দেয়া হবে।বেতন ১১৩০০ থেকে ২৭৩০০।শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচএসসি (বিজ্ঞান)।
  • টিকেট কালেক্টর গ্রেড ২ পদে ৭ জন নিয়োগ দেয়া হবে।বেতন ৯৭০০ থেকে ২৩৪৯০।যোগ্যতা এইচএসসি বা সমমান।
  • পার্সেল সহকারি গ্রেড ২ পদে ৮ জন নিয়োগ দেয়া হবে।বেতন ৯৭০০ থেকে ২৩৪৯০ টাকা।শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচএসসি বা সমমান।
  • স্টোর মুন্সি পদে ৬ জনকে নিয়োগ দেয়া হবে।বেতন ৯৩০০ থেকে ২২৪৯০।যোগ্যতা এইচএসসি বা সমমান।
  • ট্রেসার পদে ১৪ জন নিয়োগ করা হবে।বেতন ৯৩০০ থেকে ২২৪৯০।শিক্ষাগত যোগ্যতা HSC with tracing certificate।
  • টাইম কিপার পদে ৫ জন নিয়োগ করা হবে।বেতন ৯৩০০ থেকে ২২৪৯০ টাকা।যোগ্যতা এইচএসসি বা সমমান পাস।
  • আমিন পদে ৬ জনকে নিয়োগ দেয়া হবে।বেতন ৯৩০০ থেকে ২২৪৯০ টাকা।যোগ্যতা HSC with survey certificate।
  • মাতৃভাষা শিক্ষক পদে ৯ জনকে নিয়োগ দেয়া হবে।বেতন ৯৭০০ থেকে ২৩৪৯০ টাকা।যোগ্যতা এইচএসসি (বিজ্ঞান)।
  • অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদে সর্বোচ্চ ৩৩২ জন নিয়োগ দেয়া হবে।বেতন ৯৩০০ থেকে ২২৪৯০ টাকা।যোগ্যতা এইচএসসি বা সমমান পাস।
  • প্রতিটি পদে আবেদনের ক্ষেত্রে ২৪/০৩/১৯ তারিখের মধ্যে আবেদনকারীর বয়স ১৮ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে হতে হবে।
  • আবেদনপত্র অবশ্যই ২৪/০৪/১৯ তারিখ বিকেল ৫.০০ ঘটিকার মধ্যে চীফ পার্সোনেল অফিসার (পশ্চিম),বাংলাদেশ রেলওয়ে, রাজশাহী দপ্তরে পৌঁছাতে হবে।




আরো বিস্তারিত জানতে নিচের বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2019 ডাউনলোড করুন।
বাংলাদেশ-রেলওয়ে-নিয়োগ-2019
বাংলাদেশ-রেলওয়ে-নিয়োগ-বিজ্ঞপ্তি-২০১৯




Friday, 15 March 2019

March 15, 2019

এসএসসি রেজাল্ট ২০১৯ প্রকাশিত | এস এস সি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৯ দেখুন

এসএসসি রেজাল্ট ২০১৯ প্রকাশিত

SSC রেজাল্ট

এসএসসি রেজাল্ট ২০১৯ প্রকাশিত হওয়ার সাথে সাথেই ফলাফলের বিস্তারিত আমরা পাঠকদের জানিয়ে দেবো।পাশের হার,জিপিএ ৫ সহ বিস্তারিত তথ্য সমকাল ব্লগের পাঠকদের জানিয়ে দেয়া হবে।এজন্য প্রিয় এসএসসি পরীক্ষার্থী বন্ধু এবং তাদের অভিভাবক,শুভানুধ্যায়ীগণ দ্রুত এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৯ এবং নাম্বার সহ এসএসসি রেজাল্ট ২০১৯ পেতে নিয়মিত চোখ রাখুন সমকাল ব্লগে।একইসঙ্গে মাদ্রাসা বোর্ডের দাখিল পরীক্ষার ফলাফল ২০১৯ এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের ভোকেশনাল পরীক্ষার ফলাফল ২০১৯ সম্পর্কেও বিস্তারিত জানা যাবে সমকাল ব্লগে।
এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন ২০১৯

এসএসসি পরীক্ষা ২০১৯ সম্পর্কে কিছু সাধারণ তথ্য




২রা ফেব্রুয়ারি শুরু হয় এসএসসি পরীক্ষা ২০১৯ এবং ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষার রুটিন অনুযায়ী ২৬ শে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলে তত্ত্বীয় পরীক্ষা।এবছর মোট একুশ লাখ পঁয়ত্রিশ হাজার তিনশত তেত্রিশ জন পরীক্ষার্থী মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষায় অংশ নেয় যার মাঝে ছাত্র ১০ লাখ ৭০ হাজার ৪৪১ জন এবং ছাত্রী ১০ লাখ ৬৪ হাজার ৮৯২ জন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দেয়া তথ্য অনুযায়ী গতবছরের তুলনায় এবছর এসএসসি পরীক্ষার্থী বেড়েছে ১ লাখ ৩ হাজার ৪৩৪ জন।এবার আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে এসএসসি পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৭ লাখ ১০২ জন।মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষার্থী ৩ লাখ ১০ হাজার ১৭২ জন এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ১ লাখ ২৫ হাজার ৫৯ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে।মোট পরীক্ষা কেন্দ্রের সংখ্যা ৩ হাজার ৪৯৭টি এবং পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী মোট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ২৮ হাজার ৬৮২টি।এছাড়া বিদেশি আটটি পরীক্ষা কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত পরীক্ষায় মোট ৪৩৪ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়।

এসএসসি ২০১৯ ফলাফল কবে হবে




এসএসসি পরীক্ষা ২০১৯ রেজাল্ট কবে প্রকাশিত হবে তা এখনো স্পষ্ট নয়।আনুষ্ঠানিকভাবে পরীক্ষার ফলাফলের তারিখ ঘোষণা হওয়ার পরই তা আমরা পাঠকদের জানিয়ে থাকি।এজন্য ssc রেজাল্ট ২০১৯ এর সঠিক তারিখ জানতে নিয়মিত পড়ুন সমকাল ব্লগ।

এসএসসি রেজাল্ট ২০১৯ দেখার উপায়

নাম্বার সহ রেজাল্ট ssc দেখার সবচেয়ে সাধারণ উপায় হলো নিজ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে পরীক্ষার ফলাফল সংগ্রহ করা।সেইসাথে মোবাইল ফোনের এসএমএসের মাধ্যমে এবং ওয়েবসাইট থেকেও দ্রুত এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল দেখার উপায় তো রয়েছেই।

মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে এসএসসি রেজাল্ট ২০১৯ দেখার নিয়ম





  • প্রথমে ফোনের এসএমএস অপশনে লিখুন SSC
  • একটি স্পেস দিয়ে লিখুন নিজের শিক্ষা বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর
  • আরেকটি স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখুন
  • সর্বশেষ আরেকটি স্পেস দিয়ে 2019 লিখে পাঠিয়ে দিন 16222 নম্বরে যে কোনো অপারেটর থেকে
  • যেমনঃ SSC SYL 012345 2019 Send to 16222

এস এস সি পরীক্ষার ফলাফল Infographic
এসএসসি রেজাল্ট ২০১৯ infographic

সকল বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর জানতে দেখুন জেএসসি রেজাল্ট ২০১৯
এছাড়া নিচের তালিকা থেকেও দেখে নিতে পারেন সকল বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর :
First Three
Letters
Board Name
DHA Dhaka Board
BAR Barisal Board
SYL Sylhet Board
COM Comilla Board
CHI Chittagong Board
RAJ Rajshahi Board
JES Jessore Board
DIN Dinajpur Board
MAD Madrasha Board

ওয়েবসাইট থেকে ইন্টারনেটে এসএসসি রেজাল্ট ২০১৯ দেখার নিয়ম


  • প্রথমে শিক্ষা বোর্ডের সরকারি অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে
  • নিচের ছবির মতো একটি পেজ আসবে।এখানে SSC/Dakhil অথবা SSC(Vocational) সিলেক্ট করতে হবে
  • পরীক্ষার বছর অর্থাৎ ২০১৯ সিলেক্ট করতে হবে
  • নিজের বোর্ড সিলেক্ট করতে হবে
  • রোল,রেজিস্ট্রেশন নম্বর সঠিকভাবে দিয়ে submit বাটনে ক্লিক করতে হবে
এসএসসি রেজাল্ট ২০১৯


এসএসসি পরীক্ষার জিপিএ পদ্ধতি





এসএসসি পরীক্ষার গ্রেডিং পদ্ধতি চালু হয়েছে ২০০১ সাল থেকে।যারা এসএসসি পরীক্ষার গ্রেডিং পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে চান তারা নিচের ছবি থেকে কত নম্বর পেলে কোন গ্রেড পাওয়া যায় তা সহজেই জেনে নিতে পারবেন।
২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল
এসএসসি গ্রেডিং সিস্টেম

২০০১ সালে যখন প্রথম জিপিএ পদ্ধতি শুরু হয় সেবছর জিপিএ ৫ পেয়েছিলো কতো জন জানেন কি?শুনলে অনেকেই চমকে যাবেন!মাত্র ৭৬ জন!যেখানে ২০১৭ সালে এসে সংখ্যাটি দাঁড়িয়েছে ১,০৪,৭৬১ জন!প্রায় ১৩৭৯ গুণ বেশি!সর্বশেষ ২০১৮ সালের এসএসসির ফলাফল অনুযায়ী সংখ্যাটি এখন ১ লাখ ১০ হাজার ৬২৯ জন।

যে হারে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ অর্জনকারী বেড়েছে সে হারে শিক্ষার মান বেড়েছে কিনা তা নিয়ে অনেকেই সন্দিহান। ইতোমধ্যেই শিক্ষার্থীদের শিক্ষার মান নিয়ে বিভিন্ন মিডিয়ায় নেতিবাচক রিপোর্ট দেখা গেছে ।দেখা গেছে জিপিএ ৫ পাওয়া ছাত্র হওয়া সত্ত্বেও একেবারে সাধারণ প্রশ্নেরও সঠিক উত্তর দিতে পারেনি অনেকে। ইদানীং জিপিএ ৫ বিক্রি হওয়ার মতো শিক্ষা বিধ্বংসী বিষয়ও উঠে এসেছে বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলের রিপোর্টে! দেশের শিক্ষার মান উন্নত হোক এটি সকলেই চান। তবে তা যেনো শুধু কাগজে কলমে লোক দেখানোর জন্য না হয় ।এতে করে শুধু যে শিক্ষা ব্যাবস্থাই ধ্বংস হবে তা নয় বরং দেশ বঞ্চিত হবে দক্ষ এবং শিক্ষিত জনশক্তি থেকে।

ধারাবাহিকভাবে ২০০১ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত এসএসসিতে জিপিএ ৫ অর্জনকারী ছাত্রছাত্রীদের সংখ্যা নিম্নে দেয়া হলো। 
১)২০০১ সালে ৭৬ জন।
২)২০০২ সালে ৩২৭ জন।
৩)২০০৩ সালে ১,৩৮৯ জন।
৪)২০০৪ সালে ৮,৫৯৭ জন।
৫)২০০৫ সালে ১৫,৬৩১ জন।
৬)২০০৬ সালে ২৪,৩৮৪ জন।
৭)২০০৭ সালে ২৫,৭৩২ জন।
৮)২০০৮ সালে ৪১,৯১৭ জন।
৯)২০০৯ সালে ৪৫,৯৩৪ জন।
১০)২০১০ সালে ৬২,১৩৪ জন।
১১)২০১১ সালে ৬২,২৮৮ জন।
১২)২০১২ সালে ৮২,২১২ জন।
১৩)২০১৩ সালে ৯১,২২৬ জন।
১৪)২০১৪ সালে ১,৪২,২৭৬ জন!
১৫)২০১৫ সালে ১,১১,৯০১ জন!
১৬)২০১৬ সালে ১,০৯,৭৬১ জন!
১৭)২০১৭ সালে ১,০৪,৭৬১ জন!
১৮) ২০১৮ সালে ১ লাখ ১০ হাজার ৬২৯ জন।

এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৯
এসএসসি রেজাল্ট ২০০২

এসএসসি রেজাল্ট ২০১৯ ঢাকা বোর্ড

সর্বমোট ৫৩০৪২২ জন পরীক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষা ২০১৮ ঢাকা বোর্ড এ অংশগ্রহণ করে।এর মাঝে ২৫৯২৯৫ জন ছাত্র এবং ২৭১১২৭ জন ছাত্রী।এদের মাঝে ৪৩২২০১ জন পরীক্ষার্থী পাস করে যাদের মধ্যে ২০৬৮৯৭ জন ছাত্র এবং ২২৫৩০৪ জন ছাত্রী।ঢাকা বোর্ডে এসএসসি পরীক্ষায় পাসের হার ছিলো ৮১.৪৮%।পাসের জন্য প্রতিটি আবশ্যিক ও ঐচ্ছিক বিষয়ে ন্যুনতম গ্রেড পয়েন্ট ১.০।ঢাকা বোর্ডে মোট ৪১৫৮৫ জন জিপিএ ৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে যার মধ্যে ১৯৭১১ জন ছাত্র এবং ২১৮৭৪ জন ছাত্রী।এসএসসি রেজাল্ট ২০১৯ প্রকাশিত হওয়ার পর এ বিষয়ে বিস্তারিত পরিসংখ্যান প্রকাশ করা হবে।
এসএসসি রেজাল্ট ২০১৯ ঢাকা বোর্ড






Thursday, 7 March 2019

March 07, 2019

এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন ২০১৯ প্রকাশিত পরীক্ষা শুরু ১লা এপ্রিল

এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন ২০১৯

এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন ২০১৯, এইচএসসি রুটিন ২০১৯ বা ২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন প্রকাশিত হওয়ার সাথে সাথেই তা সমকাল ব্লগে আপডেট দেয়া হলো।এইচএসসি পরীক্ষা ২০১৯ শুরু হচ্ছে ১লা এপ্রিল সোমবার থেকে।২০১৯ সালের এইচ এস সি পরীক্ষার রুটিন প্রকাশিত হয়েছে ২৪শে ফেব্রুয়ারি।২০১৯ সালের hsc পরীক্ষার রুটিন এবং ২০১৯ সালের আলিম পরীক্ষার রুটিন উভয় রুটিনই প্রকাশ করা হলো সমকাল ব্লগে।



এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন ২০১৯





প্রিয় পরীক্ষার্থী বন্ধুরা সবাই নিশ্চয়ই এইচএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়ে ব্যাস্ত।সেই সাথে অপেক্ষা করছো hsc পরীক্ষার রুটিন ২০১৯ হাতে পাওয়ার জন্য।তোমাদের জন্য সুখবর হলো এইচ এস সি পরীক্ষার রুটিন 2019 অফিশিয়ালি প্রকাশিত হওয়ার সাথে সাথেই তোমাদের প্রিয় সমকাল ব্লগে তা প্রকাশিত হলো।hsc পরীক্ষার রুটিন ছবি আকারে এবং  PDF আকারে প্রকাশ করা হলো।সরাসরি অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে সকল বোর্ডের এইচএসসি পরীক্ষার রুটিনের PDF ফাইল ডাউনলোড করতে পারো নিচের লিংক থেকে।

এইচ এস সি পরীক্ষার রুটিন ২০১৯
hsc রুটিন ২০১৯ ২য় অংশ
২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন
এইচএসসি রুটিন ২০১৯


ডাউনলোড লিংক

২০১৯ সালের আলিম পরীক্ষার রুটিন




প্রিয় আলিম পরীক্ষার্থী বন্ধুরা ২০১৯ সালের আলিম পরীক্ষার চূড়ান্ত সময়সূচী প্রকাশিত হওয়ার পর তা এখানে সমকাল ব্লগে প্রকাশ করা হলো।আলিম পরীক্ষার রুটিন ২০১৯ ছবি আকারে এবং আলিম পরীক্ষার রুটিন 2019 pdf আকারেও প্রকাশিত হলো।
আলিম পরীক্ষার রুটিন ২০১৯
ডাউনলোড লিংক


এইচএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি





এইচএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়ে খুব সুন্দর একটি ভিডিও টিউটোরিয়াল শেয়ার করা হলো।পরীক্ষা প্রস্তুতি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।প্রস্তুতি ভালো না থাকলে পরীক্ষাও ভালোভাবে দেয়া সম্ভব নয়।এর মাঝে পরীক্ষার আগের রাতের প্রস্তুতি এবং পরীক্ষার আগে করণীয় বিষয়গুলো বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ।পরীক্ষায় ভাল করার উপায় কি সে সম্পর্কে জানতে অনেক পরীক্ষার্থীই আগ্রহী।আশা করি ভিডিওটি দেখলে এইচএসসি পরীক্ষা প্রস্তুতি আরো সুন্দর হবে।

এইচএসসি ২০১৯ পরীক্ষার্থী বন্ধুরা এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন 2019 যথাসময়ে পেয়ে যাবে কিন্তু পরীক্ষার প্রস্তুতি রুটিনের অপেক্ষায় থেমে রাখার সুযোগ নেই।এইচএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য নিচের গাইডলাইনগুলো ফলো করলে অনেক উপকার হবে।
  • এইচএসসি বাংলা ১ম পত্র
  • এইচএসসি বাংলা ২য় পত্র
  • এইচএসসি ইংরেজি ২য় পত্র
  • এইচএসসি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি
  • এইচএসসি পদার্থবিজ্ঞান ১ম পত্র
  • এইচএসসি পদার্থবিজ্ঞান ২য় পত্র
  • এইচএসসি রসায়ন ১ম পত্র
  • এইচএসসি রসায়ন ২য় পত্র
  • এইচএসসি জীববিজ্ঞান ১ম পত্র
  • এইচএসসি জীববিজ্ঞান ২য় পত্র
  • এইচএসসি গণিত ১ম পত্র
  • এইচএসসি গণিত ২য় পত্র
  • এইচএসসি ব্যাবস্থাপনা ১ম পত্র
  • এইচএসসি ব্যাবস্থাপনা ২য় পত্র
  • এইচএসসি অর্থায়ন ১ম পত্র
  • এইচএসসি অর্থায়ন ২য় পত্র
  • এইচএসসি হিসাববিজ্ঞান ১ম পত্র
  • এইচএসসি হিসাববিজ্ঞান ২য় পত্র
  • এইচএসসি অর্থনীতি ১ম পত্র
  • এইচএসসি অর্থনীতি ২য় পত্র
  • এইচএসসি বিপণন ১ম পত্র
  • এইচএসসি বিপণন ২য় পত্র
এইচএসসি ২০১৯ এর সকল বিষয়ের প্রস্তুতির জন্য ভিজিট করুন রবি 10 minute school

এইচএসসি ২০১৯ প্রবেশপত্র

এইচএসসি পরীক্ষার প্রবেশপত্র বিতরণ শুরু হলে সকল পরীক্ষার্থীকে  নিজ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে তা সংগ্রহ করতে হবে।এইচএসসি পরীক্ষার প্রবেশপত্র বিতরণ শুরু হলে দ্রুত তা পাঠকদের জানিয়ে দেয়া হবে।