Breaking

Translate

Saturday, 9 November 2019

November 09, 2019

পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯ প্রকাশ করেছে পাউবো| অনলাইনে আবেদন করুন

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯ প্রকাশ করেছে পাউবো। ফলে শুরু হলো পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ 2019। পানি উন্নয়ন বোর্ড বা পাউবো হলো বাংলাদেশ সরকারের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। সুতরাং চাকরি প্রার্থীরা বুঝতেই পাচ্ছেন পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯ হলো একটি সরকারি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি। আরো পড়ুন বাংলাদেশ ব্যাংক নিয়োগ ২০১৯ এবং বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ ২০১৯

গত ২১ অক্টোবর ২০১৯ প্রকাশিত হয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2019। সরাসরি সরকারি ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা পানি উন্নয়ন বোর্ড সার্কুলার ২০১৯ প্রকাশ করা হলো সমকাল ব্লগে। পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ ২০১৯ এর সময় ফুরিয়ে যাবার আগেই আপনিও ডাউনলোড করুন পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯ PDF এবং আবেদন করুন অনলাইনে! আরো পড়ুন প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ সার্কুলার ২০১৯

পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯




পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯ PDF আকারে সরকারি ওয়েবসাইটে দেয়া আছে। আমরা পাঠকদের সুবিধার জন্য ছবি আকারে তা এখানে শেয়ার করলাম৷ বিজ্ঞপ্তিটি এখান থেকে সহজেই ডাউনলোড করে নিতে পারবেন সবাই। বিজ্ঞপ্তিটি ভালো করে পড়ুন এবং প্রদত্ত নির্দেশনা অনুযায়ী সঠিকভাবে আবেদন করুন। কোনো প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে আমাদের তা জানাতে পারেন। যথাসম্ভব দ্রুত আপনাদের প্রশ্নের উত্তর দেয়া হবে।
পাউবো নিয়োগ ২০১৯
পাউবো নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯

পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯ PDF




যারা সরকারিভাবে প্রকাশিত মূল বিজ্ঞপ্তিটি ডাউনলোড করতে চান তাদের জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ড এর সরকারি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তির লিংক শেয়ার করা হলো। পানি উন্নয়ন বোর্ড এর সরকারি ওয়েবসাইট লিংক https://www.bwdb.gov.bd/

পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ 2019

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2019 অনুযায়ী দুটি পদে মোট ১১০ জনকে নিয়োগ দেয়া হবে। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির বিস্তারিত নিচে তুলে ধরা হলোঃ

পদের নামঃ উপ-সহকারী প্রকৌশলী/শাখা কর্মকর্তা (পুর)/প্রাক্কলনিক
পদ সংখ্যাঃ ৮৫

বেতনঃ ১৬,০০০-৩৮,৬৪০

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ পুর কৌশলে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং। তৃতীয় শ্রেণী বা বিভাগ গ্রহণযোগ্য নয়।

অভিজ্ঞতাঃ কম্পিউটার চালনায় অভিজ্ঞতা

পদের নামঃ উপ-সহকারী প্রকৌশলী/শাখা কর্মকর্তা (যান্ত্রিক/বিদ্যুৎ)
পদ সংখ্যাঃ ২৫

বেতনঃ ১৬,০০০-৩৮,৬৪০

শিক্ষাগত যোগ্যতা : যন্ত্রকৌশল, তড়িৎ কৌশল, শক্তি কৌশলে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং। তৃতীয় শ্রেণি বা বিভাগ গ্রহণযোগ্য নয়।

অভিজ্ঞতা : কম্পিউটার চালনায় অভিজ্ঞতা

আবেদনের বয়সঃ ০১-১০-২০১৯ তারিখে বয়স ১৮-৩০ বছর তবে বিশেষ ক্ষেত্রে ৩২ পর্যন্ত

আবেদনের শেষ সময়ঃ ২০-১১-২০১৯

চাকুরীর ধরণঃ স্থায়ী

আবেদন ফীঃ ১০০০ টাকা

অনলাইনে আবেদনের নিয়ম




উল্লেখিত প্রতিটি পদের জন্য প্রার্থীকে অবশ্যই অনলাইনে আবেদন করতে হবে। অনলাইনে আবেদনের জন্য

  • প্রথমে https://rms.bwdb.gov.bd/orms/ এই ওয়েবসাইটে Sign up করতে হবে
  • এরপর Login করে ড্যাশবোর্ড থেকে আবেদন ফরমটি পূরন করতে হবে
  • সবশেষে নির্ধারিত পদ্ধতিতে পেমেন্ট করে আবেদন সম্পন্ন করতে হবে
  • সফলভাবে আবেদন শেষে এসএমএসের মাধ্যমে ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড পাওয়া যাবে

পদের নাম পদ সংখ্যা অনলাইন আবেদন
উপ-সহকারী প্রকৌশলী/শাখা কর্মকর্তা
(পুর)/প্রাক্কলনিক
৮৫ আবেদন করুন এখানে
উপ-সহকারী প্রকৌশলী/শাখা কর্মকর্তা
(যান্ত্রিক/বিদ্যুৎ)
২৫ আবেদন করুন এখানে

আরো বিস্তারিত জানতে নিচের ভিডিওটি দেখতে পারেন

পানি উন্নয়ন বোর্ড পরীক্ষা




প্রতিটি পদের জন্য প্রার্থীকে যথাসময়ে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। পরীক্ষার পূর্বে এসএমএসের মাধ্যমে পরীক্ষার স্থান ও সময় জানিয়ে দেবে কতৃপক্ষ। এরপর ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে অফিসিয়াল ওয়েবসাইট হতে পরীক্ষার প্রবেশপত্র ডাউনলোড করে নিতে হবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন সম্পর্কে কারো কিছু জানার থাকলে প্রশ্ন করে তা আমাদের জানাতে পারেন। আমরা যথাসম্ভব সহযোগিতা করার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ



Wednesday, 6 November 2019

November 06, 2019

মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ দেখুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ওয়েবসাইটে

মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষার রেজাল্ট


মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ দেখুন সমকাল ব্লগে। যারা ২০১৭ শিক্ষাবর্ষের মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষা দিয়েছেন তাদের জন্য এই লেখাটি। মাস্টার্স ফাইনাল ফলাফল ২০১৯ প্রকাশিত হয়েছে ০৫ই নভেম্বর মঙ্গলবার। মাস্টার্স শেষ পর্ব রেজাল্ট ২০১৯ এবং মাস্টার্স শেষ পর্ব পরীক্ষার পুনঃনিরীক্ষণের রেজাল্ট ২০১৭ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে সমকাল ব্লগে।এখানে পাবেন মাস্টার্স রেজাল্ট দেখার নিয়ম এবং মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষার রেজাল্ট। আরও পড়ুন অনার্স ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষার রুটিন ২০১৯ এবং ডিগ্রী ১ম বর্ষ পরীক্ষার রুটিন ২০১৯

    মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ এর সারাংশ

    মাস্টার্স রেজাল্ট ২০১৭

    জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স শেষ পর্বের পরীক্ষায় ১৫৭ টি কলেজের ১ লক্ষ ৩৮ হাজার ৬৬৯ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। মূলত ৩০ বিষয়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উত্তীর্ণ হয় ১ লক্ষ ৫ হাজার ৪৫৫ জন। পাশের হার ছিলো ৭৬.০৫ শতাংশ। আরও পড়ুন প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ সার্কুলার ২০১৯

    ২০১৭ সালের মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষার রেজাল্ট




    ২০১৭ সালের এবং ২০১৬-১৭ শিক্ষা বর্ষের জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে ২০১৯ সালে। মাস্টার্স ফাইনাল ফলাফল ২০১৯ দেখার সহজ উপায় বর্ণনা করা হয়েছে সমকাল ব্লগে।

    মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ দেখুন এসএমএস এর মাধ্যমে

    মাস্টার্স শেষ পর্বের ফলাফল দেখার জন্য সহজ পদ্ধতি হলো মোবাইল ফোনের এসএমএস পদ্ধতি। এসএমএসের মাধ্যমে মাস্টার্স ফাইনাল ফলাফল দেখার পদ্ধতি দেখানো হয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে।আমাদের সমকাল ব্লগেও তা তুলে ধরা হলো।
    • প্রথমে মোবাইলের এসএমএস অপশনে টাইপ করুন NU MF Registration/Roll number
    • পাঠিয়ে দিন ১৬২২২ নম্বরে
    • উদাহরণ : NU MF 0123456 [Send to 16222]

    মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ দেখুন অনলাইনে

    


    জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল রেজাল্ট অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়।মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ মার্কশীটসহ বিস্তারিত দেখতে
    1. প্রথমে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অফিশিয়াল ওয়েবসাইট www.nu.ac.bd/results/ওপেন করতে হবে
    2. বামপাশের সাইড বার থেকে Masters সিলেক্ট করতে হবে
    3. এরপর Masters Final সিলেক্ট করতে হবে
    4. এরপর Individual Result সিলেক্ট করতে হবে
    5. Registration/Roll Number দিতে হবে
    6. Exam Year সিলেক্ট করতে হবে
    7. সর্বশেষ ক্যাপচা কোড বসিয়ে Search Result এ ক্লিক করলেই দেখা যাবে কাঙ্ক্ষিত রেজাল্ট
    মাস্টার্স ফাইনাল ফলাফল ২০১৯

    জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় রেজাল্ট এর গ্রেড থেকে সিজিপিএ হিসাব করার জন্য নিচের ভিডিওটি দেখতে পারেন

    মাস্টার্স শেষ পর্ব পরীক্ষার পুনঃনিরীক্ষণ ২০১৯

    কিভাবে দেখবেন ২০১৭ শিক্ষাবর্ষের মাস্টার্স শেষ পর্ব পরীক্ষার পুনঃনিরীক্ষণের রেজাল্ট?

    মাস্টার্স শেষ পর্ব পরীক্ষার পুনঃনিরীক্ষণের রেজাল্ট ২০১৬ প্রকাশিত হয়েছে ২২/০৫/১৯ তারিখে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকাশিত নোটিশ অনুযায়ী ৯৫৫৯ জন মাস্টার্স শেষ পর্বের ছাত্র তাদের মাস্টার্স শেষ পর্ব রেজাল্ট ২০১৯ পুনঃনিরীক্ষণের জন্য আবেদন করেছিলো।

    জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রকাশিত মাস্টার্স শেষ পর্ব পরীক্ষার পুনঃনিরীক্ষণের ফলাফল ২০১৬ থেকে দেখা গেছে বেশিরভাগ আবেদনকারীর ফলাফল অপরিবর্তিত রয়েছে।অল্প সংখ্যক আবেদনকারীর ফলাফল পরিবর্তন হয়েছে।

    সুতরাং আপনি মাস্টার্স শেষ পর্ব রেজাল্ট ২০১৯ পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন করে থাকলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রকাশিত নোটিশটি ডাউনলোড করুন এবং নোটিশে প্রকাশিত লিস্টে দেখুন আপনার রেজাল্ট পরিবর্তন হয়েছে নাকি অপরিবর্তিত রয়েছে।

    যদি আপনার মাস্টার্স শেষ পর্ব রেজাল্ট ২০১৯ পরিবর্তন না হয়ে থাকে তাহলে নতুন করে আর কিছু করার নেই তবে যদি পরিবর্তন হয়ে থাকে তাহলে পুনরায় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে দেখে নিন পরিবর্তিত ফলাফল।

    মাস্টার্স ফাইনাল রেজাল্ট ২০১৯ সম্পর্কে আরো কোনো প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন আমাদের।
    মাস্টার্স শেষ পর্ব পরীক্ষার পুনঃনিরীক্ষণের রেজাল্ট ২০১৬





    Saturday, 26 October 2019

    October 26, 2019

    কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স অক্টোবর ২০১৯ pdf

    প্রফেসরস প্রকাশনীর বই

    কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স অক্টোবর ২০১৯ প্রকাশিত হয়েছে। কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স PDF ডাউনলোড করতে চান প্রতিমাসে? কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স সেপ্টেম্বর ২০১৯ PDF ডাউনলোড করুন।

    ২০১৮ সালে প্রতি মাসেই আমাদের সমকাল ব্লগ থেকে আপনারা কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স ডাউনলোড করে পড়তে পেরেছেন। কিন্তু ২০১৯ সালে আমরা প্রতিমাসে আপডেট দিতে পারিনি। এজন্য আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত। তবে আশা করি এখন থেকে পুনরায় প্রতি মাসে ডাউনলোড করে পড়তে পারবেন কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স PDF। এছাড়াও প্রতিমাসে  সেবা প্রকাশনীর জনপ্রিয় রহস্য পত্রিকা pdf download করে পড়ুন।

    প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা শেষ। সামনেই ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধন এর পরীক্ষা। প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অথবা যে কোনো চাকুরীর পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য প্রচুর পড়াশোনা করতে হয়।বিস্তারিত গাইডলাইন, সাজেশন, সিলেবাস সহ বাজারে বিভিন্ন প্রকাশনীর চাকুরীর প্রস্তুতি গাইড পাওয়া যায়। এরমধ্যে হাতে গোনা কয়েকটি প্রকাশনীর বই নির্ভরযোগ্য এবং মানসম্পন্ন। সেগুলোর মধ্যে প্রফেসরস প্রকাশনীর বইগুলো অন্যতম।



    প্রফেসরসের জব সল্যুশন এবং কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স সকল চাকুরী প্রার্থীর কাছেই সুপরিচিত। বিশেষ করে কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স প্রতিমাসেই নিয়মিত পড়ে থাকেন অনেক চাকুরী প্রার্থী। এতে প্রতি মাসেই ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য সাম্প্রতিক ঘটনাবলী সম্পর্কে জানা যায়। বিভিন্ন ভর্তি পরীক্ষা এবং চাকুরীর নিয়োগ পরীক্ষায় আসার মতো সাম্প্রতিক প্রশ্নোত্তর দিয়েই সাজানো থাকে কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স। প্রচুর তথ্যবহুল এবং ভর্তি পরীক্ষা, নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের জন্য উপকারী কারেন্ট অ্যাফেয়ার্সের মূল্যও খুব বেশি নয়। এটি পড়তে চাইলে ক্রয় করে পড়াই সবচেয়ে উত্তম। বিশেষ ক্ষেত্রে PDF ভার্সন ডাউনলোড করেও পড়া যায়। আমরা যেখানেই যাই আর কিছু না থাকুক মোবাইল ফোনটি সবসময়ই আমাদের সাথেই থাকে। কাজেই ফোনে কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স PDF ভার্সন ডাউনলোড করা থাকলে যে কোনো অবস্থায় যে কোনো জায়গায় সুযোগ পেলেই চোখ বোলানো যাবে।

    পাঠকদের সুবিধার জন্য সমকাল ব্লগ থেকে প্রতিমাসে ২০১৯ সালে প্রকাশিত প্রফেসরস কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স pdf ডাউনলোড লিংক দেয়া হচ্ছে। যেমন কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স আগস্ট ২০১৯। তবে এগুলোর আপলোডার আমরা নই।



    এটি প্রফেসরস প্রকাশনীর অফিশিয়াল কোনো সার্ভিস নয় এবং আমরা সমকাল ব্লগ কতৃপক্ষও এটি আপলোড করিনা। কেউ সম্পূর্ণ নিজের উদ্যোগে এটি প্রতিমাসে আপলোড করে থাকেন।আমরা শুধুমাত্র ডাউনলোড লিংক দিয়ে থাকি।কাজেই যতদিন তাঁরা আপলোড করতে থাকবেন এবং আমাদের ডাউনলোড লিংক শেয়ারের বিষয়ে আপত্তি করবেন না ততদিনই এখানে নিয়মিত প্রতি মাসের কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স ডাউনলোড করা যাবে। আমরা বর্তমান অরিজিনাল আপলোডার বইঘরের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

    কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স মে ২০১৯ pdf
    নমুনা পাতা

    কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স PDF ডাউনলোড করুন

    • কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স নভেম্বর ২০১৯ PDF
    • কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স ডিসেম্বর ২০১৯ PDF
    • কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স জানুয়ারি ২০২০ PDF
    • কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স ফেব্রুয়ারি ২০২০ pdf

    • কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স মার্চ ২০২০ pdf
    • কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স এপ্রিল ২০২০ pdf

    প্রফেসরস প্রকাশনীর বিশেষ কিছু বইয়ের pdf download করুন

    প্রফেসরস জব সলিউশন pdf download একেবারে পূর্ণাঙ্গ ভার্সন এখনও ইন্টারনেটে পাওয়া যাচ্ছেনা। তবে কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স PDF ছাড়াও প্রফেসরস প্রকাশনীর আরো কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বইয়ের PDF শেয়ার করা হলো। আশা করা যায় বইগুলো যে কোনো চাকুরি প্রার্থী এবং প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের বিশেষ উপকারে আসবে।

    তবে আমরা কখনও শুধু এইসব প্রফেসরস PDF বইয়ের উপর নির্ভরশীল হতে বলবোনা চাকুরী প্রার্থীদের। আগেই বলা হয়েছে চলার পথে যে কোনো সময় যাতে চোখ বুলানো যায় এবং যে কোনো অবস্থায় চর্চা করা যায়, কাছে বই না থাকার জন্য যাতে অনুশীলন ব্যাহত না হয় শুধু এজন্যই আমরা এসব PDF সাথে রাখার পরামর্শ দিচ্ছি। নিচে প্রফেসরস প্রকাশনীর জব সলিউশন গাইড pdf এর পরিবর্তে একইরকম উপকারী অন্য কয়েকটি বইয়ের ডাউনলোড লিংক দেয়া হলো। বইগুলো ব্যাংক জব প্রার্থী এবং বিসিএস প্রার্থীদেরও অনেক উপকারে আসবে।




    যত দ্রুত সম্ভব প্রফেসরসের বইগুলো ডাউনলোড করে নেয়াই ভালো কারণ এসব লিংক পার্মানেন্ট নয়। যে কোনো সময় রিমুভ হতে পারে ।


    ডাউনলোড করতে কোনো সমস্যা হলে কমেন্ট করে জানান , আপডেট করা হবে।

    তবে PDF ফাইলগু‌লো শেয়ার করায় যদি কোনো লিগ্যাল কতৃপক্ষ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন বলে মনে করেন অথবা যদি কোনো অভিযোগ থাকে তাহলে phoneapps43@gmail.com এই ইমেইলে যোগাযোগ করুন। যথাযথ ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।

    আরো পড়ুন :
    পোস্টটি উপকারী মনে হলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেননা।



    Tuesday, 15 October 2019

    October 15, 2019

    রহস্য পত্রিকা , রহস্য পত্রিকা pdf download 2019

    রহস্য পত্রিকা pdf

    রহস্য পত্রিকা PDF ডাউনলোড করতে চান? রহস্য পত্রিকা হলো সেবা প্রাকাশনী থেকে প্রকাশিত একটি মাসিক পত্রিকা। রহস্য পত্রিকা PDF download করতে চাইলে সহজেই তা করতে পারবেন সমকাল ব্লগ থেকে। রহস্য পত্রিকা ২০১৯ সালেও পূর্বের মতোই জনপ্রিয় একটি মাসিক পত্রিকা। তবে অনেকেই রহস্য পত্রিকা ফ্রি ডাউনলোড করে পড়তে চান। তাদের জন্যই রহস্য পত্রিকা PDF download 2019 লিংকগুলো শেয়ার করা হচ্ছে।
    

    আমার জীবনে সবচেয়ে বেশি এবং নিয়মিত যে মাসিক পত্রিকা বা ম্যাগাজিনটি পড়া হয়েছে সেটি হলো সেবা প্রকাশনির রহস্য পত্রিকা। পেপারব্যাক এ মাসিক রহস্য পত্রিকাটি বাংলাদেশে বেশ জনপ্রিয়। প্রতি মাসের নতুন রহস্য পত্রিকাটি হাতে পাওয়ার জন্য উন্মুখ হয়ে থাকতাম। কাজী আনোয়ার হোসেন সম্পাদিত রহস্য পত্রিকাটি থাকতো নানারকম স্বাদে ভরপুর। বেশ কয়েকবছর ধরে নিয়মিত পড়েছি,কোনো মাসেই বাদ যায়নি। সেসময় রহস্য পত্রিকার প্রতিটি সংখ্যার মূল্য ছিলো বিশ টাকা।আমাদের এলাকায় একমাত্র রেলওয়ে বুকস্টলেই পাওয়া যেতো রহস্য পত্রিকা। ঢাকা থেকে ডাকযোগে আসতে মাসের চার পাঁচ তারিখ লেগে যেতো! অথচো এই অপেক্ষাও অনেক দীর্ঘ মনে হতো তখন। এটা স্কুল জীবনের কথা। অনেক ছোট ছোট বিষয়ের মাঝেও অপার আনন্দ খুঁজে পাওয়ার বয়স তখন! মাসের চার পাঁচ তারিখ পার হলেই প্রতিদিন স্টলে গিয়ে খোঁজ নিতাম কবে আসবে পত্রিকা, এতো দেরি হচ্ছে কেন? অবশ্য আমার মতো নিয়মিত পাঠক সম্ভবত খুব বেশি ছিলোনা আমার এলাকায়! কারণ দেখতাম মাত্র দশ থেকে পনেরো পিস পত্রিকা আসতো প্রতিমাসে! আমার মতো বাঁধা কয়েকজন কাস্টমারদের জন্যই হিসেব করে আনা হতো! এমন অনেকবারই হয়েছে যে ডাক থেকে আনার পর প্যাকেট খুলে প্রথম পত্রিকাটি আমিই বাড়ি নিয়ে গেছি। সেই ফিলিংস আর কখনও উপভোগ করা সম্ভব নয়! কিন্ত স্মৃতিচারণের মধ্যেও আলাদা আনন্দ রয়েছে! এছাড়াও পড়ুন কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স PDF 2019 এবং প্রফেসরস শিক্ষক নিবন্ধন গাইড

    কখন যে পড়া বাদ দিয়েছি কেন বাদ দিয়েছি তা স্পষ্ট মনে নেই। তবে পুরনো পত্রিকাগুলো এখনো সংগ্রহে আছে! অবশ্য নিশ্চয়ই অনেক ধুলো জমে গেছে সেগুলোর উপর। হঠাৎই কিছুদিন আগে মনে হলো দেখিতো আগের মতোই আছে নাকি সেই রহস্য পত্রিকার রহস্যের ভান্ডার? এখন তো ডিজিটাল যুগ। মন চাইলেই অনেক কিছু সাথে সাথেই হাতের নাগালে চলে আসে! সত্যিই ইন্টারনেটে খুঁজে পেলাম রহস্য পত্রিকা pdf download লিংক। ডাউনলোড করে পড়ে ফেললাম 😄😄 আশ্চর্য আবার পুরনো দিনের সেই অনুভূতিই যেনো ফিরে পেলাম!




    রহস্য পত্রিকা PDF download 2019

    একটি ওয়েবসাইট খুঁজে পেলাম যেখানে প্রতিমাসের রহস্য পত্রিকা pdf নিয়মিত আপলোড করা হয়! তবে অবশ্যই চলমান মাসের কপি নয়। গতমাসের কপি! কিন্তু ভালো লাগলো দেখে যে প্রতিমাসেই নিয়মিত আপলোড হয়! কাজেই এরকম হঠাৎ যদি কোনো অবসরে মনে হয় পুরনো দিনের প্রিয় সেই পত্রিকাটিতে একটু চোখ বুলিয়ে নিই এখন আর তাতে কোনো বাধা নেই! এখানে রহস্য পত্রিকা ২০১৯ এর ডাউনলোড লিংক শেয়ার করে দিলাম। আমার মতো কোনো খেয়ালী পাঠক চাইলে যাতে সহজেই পড়তে পারে রহস্যময় সেই রহস্য পত্রিকা।

    আরো অনেক ওয়েবসাইটেই হয়তো রহস্য পত্রিকার ডাউনলোড লিংক দেয়া আছে তবে সেসব লিংকে ক্লিক করলে বিরক্তিকর এডভার্টাইজমেন্ট শো করবে। ডাউনলোড করতে বেশি সময় লাগবে। এখানে ডাউনলোড করলে ঝামেলা ছাড়াই সরাসরি mediafire থেকে ডাউনলোড হবে।

    মোবাইল ফোন অথবা কম্পিউটার থেকে যে কোনো ওয়েব ব্রাউজার দিয়ে রহস্য পত্রিকা খুব সহজেই ডাউনলোড করা যাবে। যাদের মোবাইল অথবা কম্পিউটারে ইবুক পড়ার অভ্যাস আছে তারা জানেন ইবুক বা pdf ফাইল পড়ার জন্য Adobe reader app বা software প্রয়োজন হয়। রহস্য পত্রিকা পড়ার জন্যও adobe reader প্রয়োজন হবে। যাদের মোবাইলে app টি নেই তারা Google play থেকে এখনই ডাউনলোড করে নিতে পারেন।


    Google play স্টোরে রহস্য পত্রিকা পড়ার জন্য রহস্য পত্রিকা কালেকশন নামে jingalala app এর তৈরি একটি app আছে। তবে এটি ডাউনলোড করার পরামর্শ দেবোনা কারণ app টির কোয়ালিটি খুবই খারাপ। ভবিষ্যতে ভালো কোনো app পাবলিশ হলে এবং আমাদের নজরে আসলে তা পাঠকদের জানিয়ে দেয়া হবে।

    রহস্য পত্রিকা প্রতিষ্ঠার ইতিহাস জানতে চান? তাহলে পড়ুন।

    রহস্য পত্রিকা মে ২০১৯ pdf
    নমুনা পাতা

    কৃতজ্ঞতা :  অরিজিনাল আপলোডার এবং বইঘর


    Saturday, 12 October 2019

    October 12, 2019

    ১৭ তম শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার ২০১৯ এর সর্বশেষ খবর

    শিক্ষক_নিবন্ধন_পরীক্ষা
    ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি ২০১৯ প্রকাশিত হয়েছে। শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার ২০১৯ প্রকাশ করেছে NTRCA। সামনে ১৭ তম শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার ২০১৯। অতঃপর ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধন প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি, প্রবেশপত্র ডাউনলোড, সিলেবাস এবং ফলাফলের বিস্তারিত তথ্য প্রকাশিত হলো সমকাল ব্লগে।

    ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা ২০১৯ এর প্রিলিমিনারি ও লিখিত পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে। স্কুল ও স্কুল ২ এর প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় ৩০শে আগস্ট ২০১৯ শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত।কলেজ পর্যায়ের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় একই দিনে বিকেল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত। নিচে বিজ্ঞপ্তিটি দেয়া হয়েছে। বিস্তারিত দেখুন ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা ২০১৯ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে। আরও পড়ুন বাংলাদেশ ব্যাংক নিয়োগ ২০১৯

    ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি ২০১৯




    বৃহস্পতিবার ২৩ মে ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার ২০১৯ প্রকাশ করা হয়। বিজ্ঞপ্তি অনুসারে ২৮শে মে বেলা ৩টা থেকে এনটিআরসিএ'র নির্ধারিত ওযেবসাইটে ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধন এর আবেদন করা যাবে। আগামী ১৯শে জুন সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন আগ্রহী প্রার্থীগণ। আর ২২শে জুন পর্যন্ত আবেদনের ফি জমা দিতে পারবেন প্রার্থীরা। ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধনের ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫০ টাকা। এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে NTRCA ওয়েবসাইটে। আবেদনের নিয়ম বিস্তারিত বর্ণনা করা হয়েছে বিজ্ঞপ্তিটিতে।এনটিআরসিএ অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধন বিজ্ঞপ্তি ডাউনলোড করে নিন।
    ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন

    ১৬তম নিবন্ধনের বিজ্ঞপ্তি
    ১৬তম নিবন্ধন সার্কুলার

    ১৭ তম শিক্ষক নিবন্ধন ২০১৯ অনলাইন আবেদন পদ্ধতি




    অনলাইনে সঠিকভাবে ১৭ তম শিক্ষক নিবন্ধনের আবেদন করার জন্য নিচের পদ্ধতি অনুসরণ করুন।
    • প্রথমে http://ntrca.teletalk.com.bd/home.php ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন
    • application form এ ক্লিক করুন
    • আপনার আবেদনের পদ নির্বাচন করুন
    • Candidates Information Form (CIF) পূরন করুন
    • আপনার ছবি এবং সিগনেচার আপলোড করুন
    • সবশেষে আপনার applicants copy সংরক্ষণ এবং প্রিন্ট করুন
    NTRCA অনলাইন আবেদন

    কিভাবে আপনার পরীক্ষার ফী পরিশোধ করবেন?




    আবেদন ফরমটি পূরন করার পর অবশ্যই আপনাকে নির্ধারিত ৩৫০ টাকা পরীক্ষার ফী পরিশোধ করতে হবে। কিন্তু কিভাবে এটি পরিশোধ করবেন?

    আপনাকে অবশ্যই টেলিটক প্রিপেইড সিম থেকে দুটি এসএমএস প্রেরণের মাধ্যমে পরীক্ষার ফী প্রদান করতে হবে। এজন্য সিমে পর্যাপ্ত টাকা রিচার্জ করে ফী প্রদান করার জন্য এসএমএস করুন!

    প্রথম এসএমএস ফরম্যাট
    NTRCA<Space>User ID (পাঠিয়ে দিন 16222 নম্বরে)
    প্রথম এসএমএস পাঠানোর পর ফিরতি এসএমএসে আপনাকে একটি PIN নম্বর দেয়া হবে।এই পিন নম্বর দিয়ে দ্বিতীয় এসএমএস পাঠাতে হবে।
    দ্বিতীয় এসএমএস ফরম্যাট
    NTRCA<Space>Yes<Space>PIN (পাঠিয়ে দিন 16222 নম্বরে)


    দ্বিতীয় এসএমএস পাঠানোর পরেই ফোনের ব্যালেন্স থেকে পরীক্ষার ফী কেটে নেয়া হবে এবং আপনার ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে একটি ফিরতি এসএমএস পাঠানো হবে।এসএমএসটি ভবিষ্যতের কাজের জন্য সংরক্ষণ করে রাখতে হবে।
    • অনলাইনে আবেদন করার বায়াত্তর ঘন্টার মধ্যেই ফী পরিশোধ করতে হবে।
    • পরীক্ষার ফী সঠিকভাবে প্রেরণ না করা পর্যন্ত আবেদন গ্রহনযোগ্য হবেনা।

    ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধন রেজাল্ট

    ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধনের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে।

    এনটিআরসিএ ওয়েব সাইটে (http://ntrca.teletalk.com.bd/result/ ) ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এছাড়া উত্তীর্ণ প্রার্থীদের এসএমএস করে ফলাফল জানানো হয়েছে।

    প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের দ্বিতীয় ধাপে লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের শেষ ধাপে মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।




    ১৭ তম শিক্ষক নিবন্ধন ২০১৯ পরীক্ষা পদ্ধতি

    ১২তম নিবন্ধন পরীক্ষা থেকে প্রিলিমিনারি এবং লিখিত পরীক্ষা আলাদাভাবে নেয়া হচ্ছে। বিসিএসের আদলে প্রথমে ১০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় পাস করতে হয়। এরপর লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাওয়া যায়। আবার ১৩তম নিবন্ধন পরীক্ষা থেকে প্রিলিমিনারি, লিখিত পরীক্ষার পর আবার ভাইবা বা মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। নতুন নিয়ম অনুযায়ী প্রিলিমিনারি, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পরই পাওয়া যাবে নিবন্ধনের চূড়ান্ত সনদপত্র।বেসরকারি এমপিওভুক্ত অথবা নন এমপিও স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসায় শিক্ষক পদে চাকুরী করতে হলে NTRCA প্রদত্ত এই নিবন্ধন সনদপত্র অর্জন করা বাধ্যতামূলক।

    বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়াতেও এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন। পূর্বে এসব প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার চূড়ান্ত এক্তিয়ার ছিলো প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির হাতে। বর্তমানে ২০১৬ সাল থেকে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগের সুপারিশের ক্ষমতা দেয়া হয়েছে এনটিআরসিএ 'র কাছে।





    নিবন্ধন পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে তৈরি  মেধাতালিকা অনুযায়ী নিয়োগের সুপারিশ করবে NTRCA। এজন্য নিবন্ধন পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর এখন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক হওয়ার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আরো পড়ুনঃ

    এজন্য বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক হতে চাইলে নিবন্ধন পরীক্ষায় ভালো নম্বর পাওয়ার জন্য পরিপূর্ণ প্রস্তুতির প্রয়োজন।

    নিবন্ধন পরীক্ষায় আবেদনের যোগ্যতা

    অনেকেই নিজেদের শিক্ষাগত যোগ্যতা উল্লেখ করে প্রশ্ন করেন তারা নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন কিনা। NTRCA তাদের  নিবন্ধনের সার্কুলারে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে কোন পদে নিবন্ধন পরীক্ষার আবেদনের জন্য কি যোগ্যতার প্রয়োজন। আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতার সাথে মিলিয়ে দেখে নিন আপনি কোন পদে নিবন্ধন পরীক্ষায় আবেদনের জন্য যোগ্য।
    ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনের সার্কুলার ২০১৯
    দেখতে পাচ্ছেন সার্কুলারের ১৫ নং ধারা থেকে আবেদনের যোগ্যতার বিস্তারিত বিবরণ রয়েছে।পূর্ণাঙ্গ সার্কুলারটির ডাউনলোড লিংক দেয়া হয়েছে কাজেই বিজ্ঞপ্তিটি ডাউনলোড করে ভালো করে বুঝে নিন আপনি নিবন্ধন পরীক্ষায় আবেদনের জন্য যোগ্য কিনা।

    ১৭ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার সিলেবাস ২০১৯




    ১৭ তম নিবন্ধনের প্রিলিমিনারি এবং লিখিত পরীক্ষার সিলেবাস ডাউনলোড করুন। স্কুল পর্যায়ের ২৫ টি বিষয়ের ১০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার সিলেবাস একই। তবে লিখিত পরীক্ষার সিলেবাস ভিন্ন ভিন্ন। ১৭ তম নিবন্ধন পরীক্ষার স্কুল পর্যায়ের সিলেবাস ডাউনলোড করুন।
    ১৬ তম নিবন্ধন পরীক্ষার স্কুল পর্যায়ের সিলেবাস

    আবার ১৭ তম নিবন্ধনের স্কুল ২ পর্যায়ের ২৪ টি বিষয়ের ১০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার সিলেবাস একই কিন্তু লিখিত পরীক্ষার সিলেবাস আলাদা। ১৭ তম নিবন্ধন পরীক্ষার স্কুল ২ পর্যায়ের সিলেবাস ডাউনলোড করুন।
    ১৬ তম নিবন্ধনের স্কুল ২ সিলেবাস

    কলেজ পর্যায়ের নিবন্ধন পরীক্ষা হয় ৫১টি বিষয়ে। প্রতিটি বিষয়ের ১০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রশ্ন এবং সিলেবাস একই কিন্তু লিখিত পরীক্ষার প্রশ্ন এবং সিলেবাস ভিন্ন ভিন্ন। ১৭ তম নিবন্ধন পরীক্ষার কলেজ পর্যায়ের সিলেবাস ডাউনলোড করুন।
    ১৬ তম নিবন্ধন পরীক্ষার কলেজের সিলেবাস

    ১৭ তম নিবন্ধন পরীক্ষার মানবন্টন

    পরীক্ষার্থীদের নিশ্চয়ই জানা হয়ে গেছে যে নিবন্ধন পরীক্ষা তিনটি ধাপে অনুষ্ঠিত হবে। প্রিলিমিনারি, লিখিত এবং মৌখিক পরীক্ষা।

    প্রিলিমিনারি পরীক্ষার মোট নম্বর ১০০। চারটি বিষয়ে প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। বাংলা, ইংরেজি, সাধারণ গণিত এবং সাধারণ জ্ঞান। প্রতিটি বিষয়ে ২৫ টি করে প্রশ্ন থাকবে এবং প্রতিটি প্রশ্নের নম্বর ১। তবে প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য মোট নম্বর হতে ০.৫০ নম্বর কাটা হবে। পরীক্ষার সময় ১ ঘন্টা। প্রিলিমিনারি পরীক্ষার পাস নম্বর ৪০। 

    লিখিত পরীক্ষার প্রতিটি বিষয়ের নম্বর ১০০। প্রতিটি বিষয়ের লিখিত পরীক্ষার সময় তিন ঘন্টা।

    মৌখিক পরীক্ষার মোট নম্বর ২০। এর মধ্যে সনদপত্রের জন্য ১২ নম্বর এবং প্রশ্ন উত্তরের জন্য ৮ নম্বর। উভয় ক্ষেত্রেই ন্যুনতম ৪০% নম্বর না পেলে মেধাতালিকায় স্থান পাওয়া যাবেনা। 

    ১৭ তম শিক্ষক নিবন্ধন ২০১৯ প্রবেশপত্র ডাউনলোড




    ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধন ২০১৯ এর আবেদন প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে আগেই। প্রিলিমিনারি পরীক্ষার রেজাল্ট প্রকাশিত হয়েছে। পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের লিখিত পরীক্ষার জন্য পুনরায় প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে হবে।

    ১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা ২০১৯ এর লিখিত পরীক্ষার তারিখও ঘোষণা করা হয়েছে। পরীক্ষার পূর্বে প্রার্থীদের মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে পরীক্ষার স্থান ও সময় জানিয়ে দেবে কতৃপক্ষ। এরপরই ডাউনলোড করা যাবে প্রবেশপত্র।

    প্রবেশপত্র ডাউনলোড করুন





    October 12, 2019

    বাংলাদেশ ব্যাংক সার্কুলার ২০১৯ এবং প্রবেশপত্র ডাউনলোড করুন

    বাংলাদেশ ব্যাংক নিয়োগ

    বাংলাদেশ ব্যাংক সার্কুলার ২০১৯ প্রকাশিত হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক হলো বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯ যারা খুঁজছেন তাদের জন্য সুখবর হলো সম্প্রতি নতুন চাকুরির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে। ব্যাংকে চাকরি করতে আগ্রহী প্রার্থীগণ আবেদন করতে পারেন বাংলাদেশ ব্যাংক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি  2019 এ উল্লেখিত পদগুলোতে। আরও পড়ুন পুলিশ নিয়োগ ২০১৯ এবং বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ ২০১৯


      বাংলাদেশ ব্যাংক সার্কুলার ২০১৯ বিস্তারিত




      পদের নাম : সিসিটিভি অপারেটর

      বাংলাদেশ ব্যাংক গত ৬ই অক্টোবর একটি নতুন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। এটিই সর্বশেষ বাংলাদেশ ব্যাংক সার্কুলার ২০১৯।

      পদ সংখ্যা  : ২৬

      বেতন :  ৯৩০০-২২৪৯০

      যোগ্যতা : ন্যুনতম গ্রাজুয়েট এবং সিসিটিভি ক্যযামেরা ও কম্পিউটারে দক্ষতা বাধ্যতামূলক।

      বয়স : ০৬/১০/২০১৯ তারিখে বয়স ৩০। বিশেষ ক্ষেত্রে ৩২

      আবেদনের শেষ সময় : ৩১/১০/২০১৯

      আরো বিস্তারিত জানতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিটি দেখুন।

      পদের নাম : সিসিটিভি টেকনিশিয়ান

      বাংলাদেশ ব্যাংকে সিসিটিভি টেকনিশিয়ান পদে লোক নিয়োগ করা হবে। এজন্য বাংলাদেশের স্থায়ী বাসিন্দাদের কাছ থেকে আবেদনপত্র আহ্বান করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

      পদ সংখ্যা : ৩ জন

      বেতন স্কেল : ৮৫০০-২০৫৭০

      শিক্ষাগত যোগ্যতা : এসএসসি অথবা সমমান, ৬ মাস মেয়াদী ইলেক্ট্রিক্যাল ট্রেড কোর্স


      দক্ষতা : সিসিটিভি সংক্রান্ত ২ বছরের বাস্তব অভিজ্ঞতা


      বয়স :   ০৬/১০/১৯ তারিখে সর্বোচ্চ ৩০ বছর তবে বিশেষ ক্ষেত্রে ৩২ বছর।

      আবেদনের শেষ তারিখ : ৩১/১০/২০১৯

      আগ্রহী প্রার্থীদের বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়োগ সংক্রান্ত অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে আবেদন করতে হবে।আরো বিস্তারিত জানতে অরিজিনাল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখুন। পড়ুন প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ সার্কুলার ২০১৯
      সিসিটিভি টেকনিয়ান


      পদের নাম : ডেপুটি গভর্নর

      বাংলাদেশ ব্যাংক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2019 অনুযায়ী ডেপুটি গভর্নর পদে আবেদন করতে চাইলে প্রার্থীকে যেকোনো বিষয়ে স্নাতকোত্তর পাস হতে হবে। এছাড়াও আরও বিশেষ যোগ্যতার প্রয়োজন রয়েছে।

      বয়সসীমা: প্রার্থীকে ৩১ অক্টোবর ২০১৯ সালে সর্বোচ্চ বয়স ৬০ এর মধ্যে হতে হবে

      পদ সংখ্যা : ০১

      আবেদনের শেষ তারিখ
      ৩১ অক্টোবর ২০১৯ পর্যন্ত আবেদন করা যাবে।
      বিস্তারিত দেখুন বিজ্ঞপ্তিতে
      ডেপুটি গভর্নর বাংলাদেশ ব্যাংক


      বাংলাদেশ ব্যাংক প্রবেশপত্র ডাউনলোড




      বাংলাদেশ ব্যাংক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি  ২০১৯ এর সকল পদের পরীক্ষার প্রবেশপত্র ডাউনলোড সংক্রান্ত  বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয় অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে। আবেদনকারীদের (https://erecruitment.bb.org.bd) ওয়েবসাইট থেকে নির্ধারিত পরীক্ষার প্রবেশপত্র ডাউনলোড করার জন্য অনুরোধ করা হলো

      বাংলাদেশ ব্যাংক নিয়োগ ২০১৯ আবেদনের নিয়ম




      বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে অনলাইনে আবেদন করতে হবে।
      • আগ্রহী প্রার্থীগণ শুধুমাত্র বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়োগ সংক্রান্ত ওয়েবসাইটের (www.erecruitment.bb.org.bd) মাধ্যমে Online Application Form পূরন করে আবেদন করতে পারবেন।
      • আবেদনের জন্য কোনো ফী বা টাকা-পয়সা লাগবে না।
      • ১৫ নভেম্বর ২০০৯ বা পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সিভি ব্যাংকে রেজিস্ট্রেশন করা থাকলে পুনরায় নিবন্ধন করতে হবে না, সিভি আইডেন্টিফিকেশন নম্বর ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে আবেদন করা যাবে। তবে নতুন আবেদনকারীদের আবেদনের আগে নিবন্ধন করতে হবে।
      • দরখাস্ত করার সময় ফরম পূরনের নিয়মাবলী এবং অন্যান্য শর্ত ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।
      • প্রার্থীর নাম, পিতা ও মাতার নাম এসএসসি বা সমমানের সনদে যেভাবে লেখা আছে, অনলাইন ফরমে সেভাবে পূরণ করতে হবে।
      • ফলাফলের ঘরে অবশ্যই পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের প্রকাশিত পরীক্ষার ফলের তারিখ উল্লেখ করতে হবে।

      ছবি ও স্বাক্ষর
      আপলোড করতে হবে ৬০০ বাই ৬০০ পিক্সেল ও সর্বোচ্চ ৮০ কিলোবাইটের ছবি এবং ৩০০ বাই ৮০ পিক্সেল ও সর্বোচ্চ ৬০ কিলোবাইটের স্বাক্ষরের স্ক্যান কপি।

      অনলাইনে আবেদনের পর CV Identification Number,Tracking Number এবং Password ভালভাবে সংরক্ষণ করতে হবে।পরবর্তীতে প্রবেশপত্র ডাউনলোড এবং অন্যান্য কাজের জন্য এসব প্রয়োজন হবে।

      বাংলাদেশ ব্যাংকে নিয়োগ পরীক্ষা





      প্রার্থীদের MCQ,লিখিত এবং মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।

      বাংলাদেশ ব্যাংক সার্কুলার ২০১৯ এর প্রার্থীদের প্রাথমিকভাবে কোনো কাগজপত্র প্রেরণ করতে হবেনা। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে কাগজপত্র প্রেরণ করতে হবে এবং তা যাচাইয়ের পর প্রার্থীদের মৌখিক পরীক্ষায় আহ্বান করা হবে।

      Friday, 4 October 2019

      October 04, 2019

      প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ সার্কুলার ২০১৯ আসছে নভেম্বরে

      প্রাথমিক_শিক্ষক_নিয়োগ_সার্কুলার

      প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ সার্কুলার ২০১৯, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ যোগ্যতা, প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা 2019 ইত্যাদি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে সমকাল ব্লগে।

      সুতরাং প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯ বা প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ সম্পর্কে সর্বশেষ খবরাখবর জানতে পড়ুন সমকাল ব্লগ।


        প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ সার্কুলার ২০১৯




        প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯ প্রকাশিত হবে নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে। বিগত নিয়োগে আবেদন করার সময় ছিলো ১লা আগস্ট থেকে ৩০শে আগস্ট ২০১৮ পর্যন্ত। প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার জন্য রেকর্ড সংখ্যক ২৪ লাখ ১ হাজার ৫৯৭ জন প্রার্থী আবেদন করে।অথচ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৮ অনুযায়ী শিক্ষক নিয়োগ করা হবে সে তুলনায় মাত্র ১২০০০! এ থেকেই বোঝা যাচ্ছে কিরকম প্রতিযোগিতামূলক হয়েছে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯।

        তবে প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ এর ব্যাপারে পাওয়া সর্বশেষ তথ্যানুসারে শিক্ষক নিয়োগ করা হবে ২৬ হাজার ৩ শত ৬৬ জন। ফলে প্রতিটি বিদ্যালয়ে একজন করে প্রাক প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ করা হবে।

        এদিকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেনের দেয়া এক বক্তব্যে জানা গিয়েছিলো এবছর অর্থাৎ ২০১৯ সালে নিয়োগ দেয়া হবে ২০ হাজার প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক।প্রাক প্রাথমিক শ্রেণীতে ভর্তির বয়স ৫ বছর থেকে কমিয়ে ৪ বছর করা হবে এবং প্রাক প্রাথমিক শ্রেণীর মেয়াদ হবে ২ বছর। এজন্যই নিয়োগ দেয়া হবে আরো বিশ হাজার প্রাক প্রাথমিক শিক্ষক।প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ সার্কুলার ২০১৯ প্রকাশিত হওয়ার সাথে সাথেই যত দ্রুত সম্ভব তা জানিয়ে দেয়া হবে সমকাল ব্লগের পাঠকদের।

        প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব গিয়াসউদ্দিন আহমেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছিলেন বলে জানা গেছে। এ সংক্রান্ত প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরকে (ডিপিই) ইতোমধ্যেই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

        প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রত্যাশীদের জন্য সুখবর হলো প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব সম্প্রতি জানিয়েছেন আগামী ৫ বছরে আরো ১ লক্ষ শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে। আগামী ২০২০ সাল থেকেই দুই বছর মেয়াদী প্রাক প্রাথমিক শিক্ষা চালু করার প্রত্যাশা ব্যাক্ত করেছেন তিনি। সচিব মহোদয় আরো জানিয়েছেন বর্তমানে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীর অনুপাত ১:৩৬।আরো এক লাখ শিক্ষক নিয়োগ করা হলে এ অনুপাত ১:৩০ এ নামিয়ে আনা যাবে। উল্লেখ্য গত দশ বছরে ১ লক্ষ ৮০ হাজার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ করা হয়েছে।

        প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ২০১৯




        প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার তারিখ ২০১৯ নিশ্চিত করা হয়েছে। প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা কবে হবে তা স্পষ্ট করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। তারিখ প্রকাশিত হওয়ার সাথে সাথেই তা সমকাল ব্লগে প্রকাশিত হয়েছে।

        প্রথমে ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসেই পরীক্ষা সম্পন্ন করার কথা থাকলেও অনিবার্য কারণবশত তা পেছানো হয়। অতিরিক্ত সংখ্যক প্রার্থী আবেদন করার কারণে পরীক্ষার আয়োজন নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে কতৃপক্ষ।

        এরপর ডিসেম্বরে পরীক্ষার সম্ভাবনার কথা থাকলেও সেটিও সম্ভব হয়নি। বলা হয়েছিলো জানুয়ারিতে হতে পারে প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ২০১৯।

        পরবর্তীতে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ২০১৯ এর তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছিলো ১লা ফেব্রুয়ারিতে।

        এরপর  প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিয়োগ সংক্রান্ত কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত হয় যে প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ১৫ই মার্চ ২০১৯। ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি পরীক্ষা থাকায় পুনরায় পিছানো হয় পরীক্ষার সময়। বলা হয়েছিল ফেব্রুয়ারীর প্রথম সপ্তাহেই সিদ্ধান্ত হবে কোন জেলায় কবে পরীক্ষা নেয়া হবে।

        এদিকে দুঃখজনকভাবে আবারও পিছানো হয় প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা। ১৫ই মার্চ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা নেয়ার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করলেও পরীক্ষা নিতে পারেনি প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয়। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর dpe জানায় ১৩ই মার্চ প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ উদ্বোধন করা হবে। এজন্য সকল প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হচ্ছেনা ১৫ই মার্চ। তবে কখন পরীক্ষা নেয়া হবে তাও সুনির্দিষ্টভাবে বলতে পারেনি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। ধারণা করা হচ্ছিল মার্চের শেষে অথবা এপ্রিলের শুরুতে হতে পারে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ২০১৯।

        ঘোষণা করা হয়েছিলো প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা 2019 অনুষ্ঠিত হবে ১৫ই এপ্রিল ২০১৯।

        কিন্তু এপ্রিলেও হয়নি প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের খবরে জানা গিয়েছিলো মে মাসের মাঝামাঝি শুরু হবে পরীক্ষা। শোনা গিয়েছিল মে মাসের ১০ তারিখে অনুষ্ঠিত হবে ১ম ধাপের পরীক্ষা। কিন্ত তাও সম্ভব হয়নি। বলা হয় পরীক্ষা হবে ১৭ই মে। ওএমআর শীট শতভাগ নির্ভুল করার জন্যই এক সপ্তাহ পেছায় পরীক্ষা। তবে কতৃপক্ষ জানায় ৫ ধাপে পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও তা ৪ ধাপে নেয়া হবে। এজন্য এক সপ্তাহ পেছালেও সময় মতই শেষ হবে প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা।

        ১৭ মে হয়নি পরীক্ষা। ঐ দিন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ডিগ্রি পরীক্ষা থাকায় আবারো পেছায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা। ঐ দিনের পরীক্ষাটি ২১শে জুন নেয়া হবে বলে জানা যায় এবং পরীক্ষা মোট চার ধাপেই সমাপ্ত করা হবে বলে জানায় সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ।

        ২০ হাজারের মধ্যে আবেদন জমা পড়েছে এরকম ৭টি জেলায় প্রথমে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বলে প্রাথমিকভাবে জানানো হয়। তবে প্রথমে কোন কোন জেলায় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে তা তখনো জানা যায়নি।

        সাধারণত পরীক্ষার প্রশ্ন প্রণয়ন এবং পরীক্ষা পরিচালনার দায়িত্ব থাকে ডিপিই এর উপর। এবার প্রশ্ন ফাঁস রোধ করার জন্য পরীক্ষা সংক্রান্ত সকল বিষয় পরিচালনা করা হয় সরাসরি প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে। এদিকে প্রশ্নপত্র প্রণয়ন, ওএমআর শীট ডিজাইন এবং মূল্যায়ন, পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ সংক্রান্ত টেকনিক্যাল বিষয়গুলো নিয়ে বুয়েটের সাথে মিটিং করেছে মন্ত্রণালয়। বলা হয় ২০টির অধিক প্রশ্ন সেটে পরীক্ষা নেয়া হতে পারে। এছাড়া অধিক সংখ্যক পরীক্ষার্থী আবেদন করায় পূর্বের চেয়ে কেন্দ্রের সংখ্যাও বাড়ানো হয়।

        প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ২০১৯ এর শিডিউল




        দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা চার ধাপে শুরু হয় ২৪ মে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানায়।

        ২৪ ও ৩১ মে এবং ১৪ ও ২১ জুন সকাল ১০টায় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিলো। তবে সামান্য পরিবর্তন করা হয় পরীক্ষার শিডিউলে। ১৪ই জুনের পরীক্ষা হয় ২১শে জুন এবং ২১শে জুনের পরীক্ষা হয় ২৮শে জুন।

        এছাড়া তিনটি উপজেলার প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা পেছানো হয়। ২য় ধাপে ৩১ মে গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী, টুংগীপাড়া ও মুকসুদপুর উপজেলার পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবার কথা থাকলেও তা পেছানো হয়। এর পরিবর্তে ২৮ জুন চতুর্থ ধাপের পরীক্ষার সাথে এ তিন উপজেলার প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা জানায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তর।

        দেশের বিভিন্ন জেলায় যে তারিখে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় তার সিডিউল দেয়া হলো-

        ২৪ মে অনুষ্ঠিত হয় যেসব জেলায় পরীক্ষা

        ভোলা, পবনা, জয়পুরহাট ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও মানিকগঞ্জ জেলার সব উপজেলায় একযোগে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়া ও সদর উপজেলা; শরীয়তপুরের গোসাইরহাট, নড়িয়া ও ভেদরগঞ্জ উপজেলা; মাদারীপুরের সদর ও রাজৈর উপজেলা; ফরিদপুরের চরভদ্রাসন, আলফাডাঙ্গা, সদরপুর, সালথা ও সদর উপজেলা; নরংসিংদীর মনোহরদী, রায়পুরা ও বেলাবো উপজেলা; কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর, অষ্টগ্রাম, করিমগঞ্জ, কাটিয়াদি, পাকুন্দিয়া ও তারাইল উপজেলা; জামালপুরের মেলান্দহ, বকশিগঞ্জ ও সদর উপজেলা; টাঙ্গাইলের মির্জাপুর, কালিহাতী, মধুপুর, নাগরপুর, ভুয়াপুর ও ধনবাড়ী উপজেলা; লক্ষ্মীপুরের কমলনগর ও সদর উপজেলা।
        কক্সবাজারের উখিয়া, কুতুবদিয়া, পেকুয়া, টেকনাফ ও সদর উপজেলা; চাঁদপুরের শাহরাস্তি, ফরিদগঞ্জ, মতলব উত্তর, মতলব দক্ষিণ উপজেলা; হবিগঞ্জের বাহুবল, নবীগঞ্জ, লাখাই ও সদর উপজেলা; সুনামগঞ্জের দেলদুয়ারবাজার, বিশ্বম্বরপুর, ছাত্ক, সাল্লা ও সদর উপজেলা; সিলেটের কানাইঘাট, বালাগঞ্জ, বিশ্বনাথ, ফেন্সুগঞ্জ, জৈন্তাপুর ও সদর উপজেলা; পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া, নেছারাবাদ ও সদর উপজেলা; পটুয়াখালীর দুমকী, গলাচিপা ও সদর উপজেলা; সাতক্ষীরার আশাশুনি, শ্যামনগর ও সদর উপজেলা; নীলফামারীর ডোমার, সৈয়দপুর ও সদর উপজেলা; নাটোরের গুরুদাসপুর, সিংড়া ও সদর উপজেলা এবং মৌলভীবাজারের রাজনগর, কমলগঞ্জ, শ্রীমঙ্গল ও জুড়ি উপজেলায় প্রথম ধাপের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

        ৩১ মে অনুষ্ঠিত হয় যেসব জেলায় পরীক্ষা

        মুন্সীগঞ্জ, লালমনিরহাট, ঠাকুরগাঁও, নারায়ণগঞ্জ, শেরপুর ও রাজবাড়ী জেলার সব উপজেলার পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া গোপালগঞ্জের কাশিয়ানি, টুঙ্গীপাড়া ও মকসুদপুর উপজেলা; শরীয়তপুরের জাজিরা, ডামুড্যা ও সদর উপজেলা; মাদারীপুরের কালকিনি ও শিবচর উপজেলা; ফরিদপুরের নগরকান্দা, বোয়ালমারী, ভাঙ্গা ও মধুখালী উপজেলা; নরসিংদীর পলাশ, শিবপুর ও সদর উপজেলা; জামালপুরের সরিষাবাড়ী, দেওয়ানগঞ্জ, ইসলামপুর ও মাদারগঞ্জ উপজেলা; টাঙ্গাইলের ঘাটাইল, সখিপুর, গোপালপুর, বাসাইল, দেলদুয়ার ও সদর উপজেলা; কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর, নিকলী, কুলিয়ারচর, ইটনা, ভৈরব, মিঠামইন ও সদর উপজেলা।

        লক্ষ্মীপুরের রায়পুর, রামগঞ্জ ও রামগতি উপজেলা; কক্সবাজারের চকোরিয়া, মহেশখালী ও রামু উপজেলা; চাঁদপুরের কচুয়া, হাজীগঞ্জ, হাইমচর ও সদর উপজেলা; হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং, আজমিরিগঞ্জ, মাধবপুর, চুনারুঘাট উপজেলা; সুনামগঞ্জের তাহিরপুর, জামালগঞ্জ, ধর্মপাশা, দিরাই, জগন্নাথপুর ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা; সিলেটের গোয়াইনঘাট, গোলাপগঞ্জ, কোম্পানীগঞ্জ, জকিগঞ্জ, বিয়ানীবাজার, দক্ষিণ সুরামা উপজেলা; পিরোজপুর জেলার কাউখালী, নাজিরপুর, মঠবাড়িয়া ও ইন্দুরকানি উপজেলা; পটুয়াখালীর দশমিনা, বাউফল, মির্জাগঞ্জ, কলাপড়া ও রাঙ্গাবালী উপজেলা; সাতক্ষীরার দেবহাটা, কলারোয়া, কালিগঞ্জ ও তালা উপজেলা; নাটোরের নলডাঙ্গা, লালপুর, বড়াইগ্রাম ও বাগাতিপাড়া উপজেলা; নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ, জলঢাকা, ডিমলা উপজেলা এবং মৌলভীবাজারের বড়লেখা, কুলাউড়া ও সদর উপজেলায় এ ধাপে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

        ২১শে জুন অনুষ্ঠিত হয় যেসব জেলায় পরীক্ষা

        ফেনী, ঝালকাঠি, বরগুনা, মাগুরা, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও পঞ্চগড় জেলার সব উপজেলায় একযোগে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া নেত্রকোনার দুর্গাপুর, পূর্বধলা, বারহাট্টা, খালিয়াজুড়ি, মদন ও মোহনগঞ্জ উপজেলা; ময়মনসিংহের গফরগাঁও, ঈশ্বরগঞ্জ, ফুলবাড়িয়া, গৌরীপুর, ফুলপুর, ধোবাউড়া ও তারাকান্দা উপজেলা; ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর, বাঞ্ছারামপুর, আখাউড়া ও সদর উপজেলা; কুমিল্লার লাকসাম, দেবীদ্বার, মুরাদনগর, দাউদকান্দি, চৌদ্দগ্রাম, হোমনা ও সদর উপজেলা; চট্টগ্রামের ডবলমুরিং, পাহাড়তলী, বন্দর, পাঁচশাইল, চান্দগাঁও, কোতোয়ালি, বাঁশখালী, রাউজান, সন্দ্বীপ, ফটিকছড়ি, আনোয়ারা, লোহাগড়া উপজেলা; নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ।

        কবিরহাট, সুবর্ণচর ও সদর উপজেলা; বরিশালের আগৈলঝাড়া, বাকেরগঞ্জ, গৌরনদী ও সদর উপজেলা; যশোরের ঝিকরগাছা, বাঘারপাড়া, মনিরামপুর ও শার্শা উপজেলা; খুলনার কয়রা, ডুমুরিয়া ও সদর উপজেলা; বাগেরহাটের মোল্লাহাট, মোংলা, মোরেলগঞ্জ, কচুয়া, শরণখোলা উপজেলা; ঝিনাইদহের মহেশপুর, শৈলকুপা ও হরিণাকুণ্ডু উপজেলা; কুষ্টিয়ার মিরপুর, খোকসা ও সদর উপজেলা; কুড়িগ্রামের উলিপুর, চিলমারী, ফুলবাড়ী, রাজীবপুর ও সদর উপজেলা; গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ, পলাশবাড়ী ও সদর উপজেলা; রংপুরের কাউনিয়া, গঙ্গাচড়া, বদরগঞ্জ ও সদর উপজেলা; দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট, খানসামা, চিরিরবন্দর, হাকিমপুর, বীরগঞ্জ ও সদর উপজেলা; নওগাঁর বদলগাছি, মহাদেবপুর, মান্দা, রানীনগর ও সাপাহার উপজেলা; বগুড়ার আদমদীঘি, শিবগঞ্জ, শেরপুর, সোনাতলা, ধুনট ও শাহাজাহানপুর উপজেলা; রাজশাহীর গোদাগাড়ী, চারঘাট, বাগমারা ও সদর উপজেলা এবং সিরাজগঞ্জের কাজিপুর, চৌহালী, রায়গঞ্জ, বেলকুচি ও সদর উপজেলায় ১৪ জুন পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

        ২৮শে জুন অনুষ্ঠিত হয় যেসব জেলায় পরীক্ষা

        ঢাকা, গাজীপুর ও নড়াইল জেলার সব উপজেলায় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া নেত্রকোনার আটপাড়া, কমলাকান্দা, কেন্দুয়া ও সদর উপজেলা; ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা, ত্রিশাল, ভালুকা, নান্দাইল ও সদর উপজেলা; ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা, সরাইল, নাসিরনগর, আশুগঞ্জ ও বিজয়নগর উপজেলা; কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া, বরুড়া, বুড়িচং, চান্দিনা, সদর দক্ষিণ, নাঙ্গলকোট, মেঘনা, মনোহরগঞ্জ, তিতাস ও লালমাই উপজেলা; চট্টগ্রামের পটিয়া, বোয়ালখালী, চন্দনাইশ, হাটহাজারী, রাঙ্গুনিয়া, মিরেরসরাই, সীতাকুণ্ডু ও সাতকানিয়া উপজেলা; নোয়াখালীর চাটখিল, কোম্পানীগঞ্জ, হাতিয়া, সোনাইমুড়ী ও সেনবাগ উপজেলা; বরিশালের উজিরপুর, বানারীপাড়া, বাবুগঞ্জ, মুলাদী, মেহেন্দীগঞ্জ ও হিজল উপজেলা; কুষ্টিয়ার দৌলতপুর, ভোড়ামারা ও কুমারখালী উপজেলা; যশোরের অভয়নগর, কেশবপুর, চৌগাছা ও সদর উপজেলা।

        খুলনার তেরখাদা, দাকোপ, দিঘলিয়া, পাইকগাছা, ফুলতলা, বটিয়াঘাটা ও রূপসা উপজেলা; বাগেরহাটের চিতলমারী, রামপাল, ফকিরহাট ও সদর উপজেলা; ঝিনাইদহের কালিগঞ্জ, কোটচাঁদপুর ও সদর উপজেলা; কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী, ভুরুঙ্গামারী, রাজারহাট ও রৌমারী উপজেলা; গাইবান্ধার ফুলছড়ি, সাদুল্লাপুর, সাঘাটা ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলা; রংপুরের তারাগঞ্জ, পীরগঞ্জ, পীরগাছা ও মিঠাপুকুর উপজেলা; দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ, পার্বতীপুর।
        ফুলবাড়ী, বিরল, বিরামপুর, বোচাগঞ্জ ও কাহারোল উপজেলা; নওগাঁর আত্রাই, ধামুরহাট, নিয়ামতপুর, পত্নীতলা, পোরশা ও সদর উপজেলা; বগুড়ার কাহালু, গাবতলী, দুপচাঁচিয়া, নন্দীগ্রাম, সারিয়াকান্দি ও সদর উপজেলা; রাজশাহীর তানোর, দুর্গাপুর, পুঠিয়া, পবা, বাঘা ও মোহনপুর উপজেলা এবং সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া, তাড়াশ, কামারখন্দ, শাহাজাদপুর উপজেলা।(সূত্র : যুগান্তর অনলাইন) 

        প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ প্রক্রিয়া




        প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর জানিয়েছে এবার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় বেশকিছু পরিবর্তন হতে যাচ্ছে। অধিক সংখ্যক আবেদনকারীর মধ্য থেকে শুধু এমসিকিউ প্রশ্নের মাধ্যমে যোগ্য শিক্ষক বাছাই করা সম্ভব নয়। এজন্য প্রথমে এমসিকিউ পরীক্ষার মাধ্যমে কছু প্রার্থীকে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ করা হবে। এরপর পিএসসির আদলে লিখিত পরীক্ষার মাধ্যমে কিছু প্রার্থীকে মৌখিক পরীক্ষার জন্য নির্বাচিত করা হবে। আরো পড়ুন পুলিশ নিয়োগ ২০১৯

        প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ যোগ্যতা

        প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হিসেবে আবেদনের যোগ্যতা ২০১৩ সালের নীতিমালা অনুযায়ী আগের মতো আর থাকছে না। অর্থাৎ পুরুষদের জন্য ন্যুনতম গ্র্যাজুয়েট এবং নারীদের জন্য এইচএসসি পাশ আর থাকবেনা। তবে আগের মতোই ৬০% নারী কোটা বহাল রয়েছে। প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০১৯ হতে পরিবর্তন ঘটছে এ নিয়মের! নারী পুরুষ উভয়ের জন্যই আবেদনের ন্যুনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা গ্র্যাজুয়েট নির্ধারণ করা হয়েছে।

        প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রবেশপত্র ডাউনলোড

        পরীক্ষার সুনির্দিষ্ট তারিখ নির্ধারিত হওয়ার পরপরই প্রত্যেক আবেদনকারীর নিকট এসএমএস দিয়ে তা জানিয়ে দেয় কতৃপক্ষ। তখন নিচের ওয়েবসাইট থেকে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রবেশপত্র ডাউনলোড করা যাবে। প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রবেশপত্র ছাড়া পরীক্ষা দেয়া সম্ভব নয়। সুতরাং পরীক্ষায় অংশগ্রহণের পূর্বে অবশ্যই আপনার আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে অনলাইনে ডাউনলোড করে নিন প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রবেশপত্র। পরীক্ষার ৫ দিন আগে এসএমএস পাঠানো হবে পরীক্ষার্থীদের মোবাইল ফোনে। তখন থেকেই ডাউনলোড করা যাবে পরীক্ষার প্রবেশপত্র। বিগত সার্কুলারে ১৯ শে মে থেকে প্রবেশপত্র ডাউনলোড শুরু হয়। নিচে ডাউনলোড লিংক দেয়া হলো।

        প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল ২০১৯





        প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ রেজাল্ট প্রকাশিত হওয়ার সাথে সাথেই সমকাল ব্লগে আপডেট দেয়া হবে। কাজেই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার পর নিয়মিত চোখ রাখুন সমকাল ব্লগে।

        প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন

        প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন কত জানতে চান?বর্তমান বেতন স্কেল অনুযায়ী প্রশিক্ষণবিহীন প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক ১৫তম গ্রেড অনুযায়ী ৯৭০০ টাকা স্কেলে বেতন পান এবং প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক ১৪তম গ্রেডে ১০২০০ টাকা স্কেলে বেতন পান।

        তবে শীঘ্রই প্রাথমিক শিক্ষকদের দাবি অনুযায়ী গ্রেড পরিবর্তন করে বেতন বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি পূরণ করছে সরকার। নতুন বিধিমালা অনুযায়ী সহকারী শিক্ষক পাবেন ১২তম গ্রেডে বেতন, আর প্রধান শিক্ষক পাবেন ১০ম গ্রেডে। শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা সংশোধন করে এই পরিবর্তন আনা হচ্ছে শীঘ্রই।

        প্রাথমিক বিদ্যালয়ের হিসাব রক্ষক নিয়োগ

        প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হিসাব রক্ষক পদ তৈরির নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে। এজন্য প্রতিটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একজন করে হিসাব রক্ষক নিয়োগ করা হবে। জানা গেছে চলতি অর্থ বছরেই সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে সারা দেশে ৬৫ হাজার ৯৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জন্য হিসাব রক্ষক পদে নিয়োগ সার্কুলার প্রকাশ করা হবে।তবে এখনও এটি নীতিগত সিদ্ধান্তের পর্যায়ে আছে এজন্য আবেদনের যোগ্যতা ইত্যাদি বিস্তারিত জানা যায়নি। বিস্তারিত জানতে নিয়মিত চোখ রাখুন সমকাল ব্লগে।