Breaking

Translate

Sunday, 26 August 2018

কবি সোয়েব হোসেনের কাব্যগ্রন্থ খুঁজে চলি তাকের পাঁচটি বাংলা কবিতা।

বাংলা কবিতার আসর। পড়ুন কবি সোয়েব হোসেনের আরো পাঁচটি কবিতা।


কবি সোয়েব হোসেনের খুঁজে চলি তাকে কাব্যগ্রন্থের (অপ্রকাশিত) কবিতাগুলো আমাদের সাহিত্য পাতায় নিয়মিত প্রকাশিত হচ্ছে। কবিতাগুলো সম্পর্কে পাঠকের প্রতিক্রিয়া, মন্তব্য আহ্বান করা হচ্ছে। কেমন লাগছে কবিতাগুলো আপনাদের কাছে মন্তব্য করে জানান।

খুঁজে চলি তাকে : ৮টি কবিতা। 

বাংলা কবিতার চর্চাকে এগিয়ে নিতেই আমাদের এই প্রয়াস। আপনার মাঝেও যদি লুকিয়ে থাকে কোনো সাহিত্য প্রতিভা তাহলে আমাদের জানান। আমাদের সাহিত্য পাতায় প্রকাশ করা হবে আপনার সাহিত্য কর্ম।
কবি সোয়েব হোসেনের জন্ম গাইবান্ধা জেলার, সাঘাটা থানার এক প্রত্যন্ত গ্রামে। তিনি ইতিহাসে এম এ সম্মান ডিগ্রি অর্জন করেছেন। স্কুলে পড়ার সময় থেকেই তাঁর সবচেয়ে বড় ধ্যান জ্ঞান এই বাংলা কবিতার চর্চা। এখন পর্যন্ত তিন শতাধিক কবিতা রচনা করেছেন। বর্তমানে বাংলাদেশ সরকারের ন্যাশনাল সার্ভিসে কর্মরত আছেন। ন্যাশনাল সার্ভিস থেকেই তাঁকে বোনারপাড়া সরকারি কলেজের ইতিহাসের প্রভাষক হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি টিউশনি করে তাঁর জীবিকা নির্বাহ হয়।
আসুন তাহলে উপভোগ করা যাক কবি সোয়েব হোসেনের খুঁজে চলি তাকে কাব্যগ্রন্থের কয়েকটি কবিতা।


     নিখোঁজ মানুষ

দিগন্ত ছুঁয়ে যায় স্বপ্ন আমার
খুঁজে চলে একজন নিখোঁজ মানুষকে
নায়াগ্রা জলপ্রপাতের স্রোতে কান্না ঝরে পড়ে
পায়ের নিচে মাটি ভিজে কাদা হলো।
মেঘের মতো ছুটে বেড়াই
দিগন্তের এক পাশ থেকে আরেক পাশে
অবশেষে ক্লান্ত মনে নীরব হয়ে
বসে থাকি স্বপ্ন ভাঙার দেশে।


  পাইনা ভাষা কবিতা লেখার

কি আর লিখবো কবিতার খাতায়?
ব্যাথার আগুন যখন উপর দিকে উঠে
আমার মনের সারা আকাশ পুড়ে যায়।
প্রিয়ার দেয়া আঘাতে আঘাতে
ভাষা খুঁজে পাইনা কবিতা লেখার
কোথায় যেনো হারিয়ে যায় শব্দগুলো।
লাল শিমুল ফুল ফোটা বসন্ত এলেও
নীরব, সৃষ্টিশূন্য আমি।


      মনে কি পড়ে?

তোমার মনে কি পড়ে আজও
অতীতের হারিয়ে যাওয়া দিন?
নাকি সব ভুলে গেলে
মাত্র দশটি বছরে?

এখন আমি আর তোমার কেউ না
তবে কি তোমার ভালবাসা ডুবে গেলো যমুনায়?
আমার দিকে চেয়ে দেখো একবার
দশ বছরে নিঃশ্বাস নিয়েছি যতবার
ততবারই তোমাকে পড়েছে মনে
তুমি সত্যিই এক জটিল নারী!


          কবিতার উত্তর দিলে না

কয়েকটি কবিতা দিলাম রঙিন খামের ভেতরে
একটিও কি দেখলে না দুচোখ দিয়ে পড়ে?
কান্না মাখা কাগজের কথা জানলে না তুমি
মনটা কি তোমার এখন শুধুই নীরস ভূমি?
ভালোবাসার আবেগের রস দেখা যায়না আর
এতোই শক্ত হলো আজ হৃদয়টা তোমার।
কবিতার উত্তর দিলে না তুমি আমাকে
বসে থাকি বড় আশায় সকাল থেকে।
বিকেল শেষে রাত আসে কালো রং হয়ে
আমার স্বপ্ন ভেঙে ফেলা তুমি সেই মেয়ে। 


          নিষ্ঠুর বড় রাত


তোমাকে দেখার জন্য নির্ঘুম চোখ
জেগে থাকে সারারাত আশায় আশায়।
ঘরের জানালা খুলে চেয়ে দেখি
আকাশের দিকে,উঠেছে যেখানে পূর্ণিমার চাঁদ।
একটু পরে ঘর ছেড়ে বাইরে আসি
যদি প্রিয়াকে পাইতাম এখন
না বলা কথা বলতাম।

আবার দেখি কাঁশবনে,চাঁদ যেখানে
আলোর বন্যায় ভেসে দিচ্ছে চারপাশ।
দখিনা বাতাসে দুলছে অদূরের বাঁশবন
যেনো নাচছে ষোলো বছরের মেয়েরা।
রাত জাগা পাখির উড়ে যাওয়ার শব্দ আসে
মনের মানুষ দেখতে দেরি সহ্য হয়না আর
কেন যে আসতে চায় না কাক ডাকা সকাল
Bangla kobita, কবি সোয়েব হোসেনের কবিতা

No comments:

Post a Comment